President

জাতীয় সম্পদ হারালো বাংলাদেশ। আমাদের দেশ ব্যতীত পাশের দেশ কলকাতায় নায়করাজ রাজ্জাক ছিলেন সমান জনপ্রিয়। টালিগঞ্জের অভিনেতারা এই মহানায়কের মৃত্যুতে শোকাহত। সে সঙ্গে স্তব্ধ বাংলাদেশের তারকারা। এদিকে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রচার হয়েছে রাজ্জাকের মৃত্যু সংবাদ।
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। বাংলা চলচ্চিত্রের খ্যাতনামা নায়ক রাজ্জাক ২১ আগস্ট সন্ধ্যায় মৃত্যুবরণ করেছেন। সোমবার বিকেলে ঢাকার উত্তরায় তার নিজ বাসভবনে হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। এর পর তাকে দ্রুত ঢাকার গুলশানে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেয়া হলে সন্ধ্যা ৬:১৩ মিনিটে মারা যান। কলকাতার আনন্দবাজার ও কাতারের গালফ নিউজে প্রকাশিত হয়েছে অভিনেতা রাজ্জাকের প্রয়াণের খবর। তাদের সংবাদে নায়কের প্রতি গভীর শোক ও শ্রদ্ধা নিবেদক করা হয়েছে।
কলকাতার বিখ্যাত নায়ক প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ২১ আগস্ট রাত আটটার দিকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতার মৃত্যুতে শোক জানিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।
এই স্ট্যাটাসে কলকাতার এ জনপ্রিয় নায়ক রাজ্জাক’কে তিনি তার বাবার মতো বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘তার সঙ্গে আমি অসংখ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছি। তার আকস্মিক মৃত্যু শুধু সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিকে শূন্য করে দেয় নি, আমার হৃদয়কেও শূন্য করে দিয়ে গেছে। আমার মন ভেঙে যাচ্ছে তার মৃত্যু সংবাদ পেয়ে। ওপারে ভালো থাকবেন রাজ্জাক সাহেব।’
উল্লেখ্য, নায়করাজ রাজ্জাকের জন্ম ১৯৪২ সালে কলকাতায়। ১৯৬৪ সালে ঢাকায় আসেন। এরপর জড়িয়ে পড়েন চলচ্চিত্রে। দু’একটা সিনেমায় ছোটখাটো চরিত্রে অভিনয় করার পর ৬৭ সালে মুক্তি পায় নায়ক হিসেবে তার প্রথম ছায়াছবি ‘বেহুলা’। সেই থেকে শুরু। রাজ্জাকের নায়ক জীবনে জন্ম হয়েছে বেশ কয়েকটি সাড়া জাগানো জুটি। রাজ্জাক-কবরী জুটির কথা আজও মানুষের মুখে মুখে ফেরে। প্রায় অর্ধশত বছরের অভিনেতা হিসেবে রাজ্জাকের ঝুলিতে রয়েছে তিনশোটির মতো বাংলা ও উর্দু ভাষার চলচ্চিত্র।
অভিনয় জীবনের এক পর্যায়ে ছবি পরিচালনার কাজও শুরু করেন রাজ্জাক। ষোলটির মতো ছায়াছবি পরিচালনা করেছেন তিনি। সবশেষ পরিচালিত ছবিটির নাম ‘আয়না কাহিনি, যেটি মুক্তি পায় ২০১৫ সালে। কিংবদন্তি অভিনেতার মৃত্যুতে শোকে বিহ্বল সাংস্কৃতিক অঙ্গন। প্রিয়.কম

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর/এইচ কে

২২ আগষ্ট, ২০১৭ ১৬:১২ পি.এম