President

দুর্নীতি দায়ে সাজা পাওয়া বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে ডিভিশন না দিয়ে সাধারণ কয়েদিদের মতো একটি নির্জন, পরিত্যক্ত কক্ষে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

শনিবার সন্ধ্যায় কারাগারে খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করে এমন অভিযোগ করেন তিনি।

মওদুদ বলেন, জেলকোড অনুযায়ী খালেদা জিয়ার যে ডিভিশন পাওয়ার কথা ছিল তা তাকে দেয়া হয়নি। ফাতেমা নামের একজন সেবিকা ১৫/২০ বছর ধরে তার সেবা করে। তাকেও ম্যাডামের সেবা করতে দেয়া হচ্ছে না।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী হিসেবে তার সঙ্গে সোয়া ঘণ্টা কথা বলেন মওদুদ আহমদ।

তিনি জানান, রায়ের কপি হাতে পেলে সোমবার বা মঙ্গলবার আপিল করা হবে। এসময় ডিভিশনের বিষয়টি নিয়ে উচ্চ আদালত এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যাওয়ার কথাও বলেন।

খালেদা জিয়াকে জনগণ থেকে দূরে নির্জন কারাগারে রাখা হয়েছে উল্লেখ করে এ বিএনপি নেতা বলেন, তাকে অনেকটা অখাদ্য খাবার দেয়া হচ্ছে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে, সাবেক সংসদ সদস্য হিসেবে, একটি দলের প্রধান হিসেবে তার ডিভিশন পাওয়ার কথা থাকলেও তা দেয়া হচ্ছে না।

তিনি বলেন, বেগম জিয়া শারীরিকভাবে কিছুটা অসুস্থ থাকলেও মনোবল ঠিক আছে।

খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে দুপুর ৩ দিকে কারাগারে আসেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দেয় আদালত। এছাড়াও দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

এ মামলার অন্য চার অাসামীকে বিএনপির সাবেক সাংসদ কাজী সালিমুল হক কামাল, সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগনে মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

তাছাড়াও আত্মসাত করা ২ কোটি, ১০ লাখ ৭১ হাজার টাকা খালেদা জিয়া বাদে অন্য অাসামীদের জরিমানা করেছেন আদালত।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/ এইচ কে/এস আর

১০ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ২৩:৪৯ পি.এম