President

ভারতের নয়াদিল্লীতে স্ত্রীকে যৌনপল্লিতে বেঁচে দেন এক পাষণ্ড স্বামী। পরে কোনো রকমে যৌনপল্লি থেকে পালিয়ে বাঁচেন ওই গৃহবধূ।
এই পরিস্থিতিতে স্বামীর বিরুদ্ধে বাসন্তী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন স্ত্রী।

পুলিশ সূত্রে খবর, গত কয়েক বছর আগে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী থানার ১৮ বাঁকির বাসিন্দা ওই তরুণীর বিয়ে হয়। প্রেম করে বিয়ে করেন বাসন্তীর কলতলার এক যুবককে। অভিযোগ রয়েছে, বিয়ের বছর খানেক পর থেকেই শ্বশুরবাড়িতে শুরু হয় নির্যাতন। বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন স্বামী। গৃহবধূর দাবি, প্রতিবাদ করায় বন্ধ করে দেওয়া হয় খাবার দেওয়া। এরই মধ্য কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তিনি। এসময় কাজের নাম করে দিল্লি চলে যান স্বামী।

ওই নারীর দাবি, জুন মাসে একদিন তিনি ফোন করেন স্বামীকে। টাকা চান স্বামীর কাছে সংসারের কাজের জন্যে। সেই সময় স্বামী বলেন, সংসার করতে চাইলে দিল্লি যেতে হবে। একা কীভাবে যাবেন জানতে চাইলে স্বামী বলেন, বাড়িতে বলে সব ব্যবস্থা করে দেবেন। তার দাবি, এরপর শ্বশুরবাড়ির লোকেরাই তাঁর দিল্লি যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেন।

গৃহবধূর অভিযোগ, একদিন তাঁকে দিল্লির এক নিষিদ্ধপল্লিতে বিক্রি করে দেন স্বামী। সেখানেও শুরু হয় অত্যাচার। ১৫ দিন পর এক যুবকের সাহায্যে কোনোমতে সেখান থেকে পালানোর সুযোগ পান। কয়েকদিন আগেই, দিল্লি থেকে বাপের বাড়িতে ফিরে এসেছেন ওই গৃহবধূ। এরপরেই স্থানীয় থানায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে শুরু হয়েছে তদন্ত।

সূত্র: কলকাতা টোয়েন্টিফোর সেভেন

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর/এইচ কে

১৬ আগষ্ট, ২০১৭ ১৩:৩১ পি.এম