President

ঢাকা ছেড়েছেন ভারতের তাবলিগ জামাতের মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধলভী।

শনিবার দুপুর ১২টার দিকে জেট এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে ভারতের দিল্লির উদ্দেশে রওনা দেন তিনি।

এসব তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার।

তাবলিগ জামাতের বিবদমান দুই পক্ষের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কয়েক মাস আগে মাওলানা সাদ তার বয়ানে মুসা (আ.) সম্পর্কে যে মন্তব্য করেছেন, তাকে 'গুমরাহ' বলে ফতোয়া দিয়েছে ভারতের দেওবন্দ দারুল উলুম।

ভারতীয় উপমহাদেশের সব কওমি মাদ্রাসা দেওবন্দের আদর্শে পরিচালিত হয়। দেওবন্দের ফতোয়ায় বাংলাদেশের কওমি মাদ্রাসার আলেম-ওলামারাও সাদ কান্ধলভির বিরোধিতা করছেন।

তাবলীগের শীর্ষ পরামর্শ সভা থেকে সাদ কান্ধলভিকে ইজতেমায় অংশ না নেয়ার অনুরোধ করা হলেও বুধবার দুপুরে তিনি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছান।

তখনই বিমানবন্দর এলাকায় তাবলীগের একাংশের অবস্থান নেয়ার কারণে ইজতেমার মাঠে না গিয়ে কাকরাইল মসজিদে যান মাওলানা সাদ।

মাওলানা সাদের বক্তব্য প্রত্যাহার ও ক্ষমা চাওয়ার দাবিতে বৃহস্পতিবার সকালেও কাকরাইল মসজিদের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভের চেষ্টা করে তাবলিগ জামাতের একাংশ। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাদের সরিয়ে দেন।

বুধবার তাবলিগের বিবাদমান দুই পক্ষের সাথে বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান সাংবাদিকদের বলেন, টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমা যথাসময়ে হবে। শান্তিপূর্ণভাবে হবে।

তিনি বলেন, মাওলানা সাদ সুবিধামতো সময় বাংলাদেশ থেকে চলে যাবেন। তিনি ইজতেমায় অংশ নেবেন না। যতক্ষণ পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশে থাকবেন, ততক্ষণ পর্যন্ত তিনি কাকরাইলে থাকবেন।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/ এইচ কে/এস আর

১৩ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৭:১৬ পি.এম