President

নাকে পলিপ কেন হয় তা নিয়ে এখনও গবেষণা চলছে। সাধারণভাবে বলা যায়, নাকে অ্যালার্জি এর প্রধান কারণ। ধূলাবালি, ধোঁয়া থেকে অ্যালার্জি হয়, ফাংগাল ইনফেকশন থেকে নাকে ও সাইনাসজুড়ে পলিপ হতে পারে।
নাকের ভেতর রক্তনালির অস্থিরতা থেকে পলিপ হয় বলে গবেষকরা মনে করেন। পলিপ, গলায় অ্যালার্জি বা ফ্যারেনজাইটিস এবং ফুসফুসের অ্যালার্জি বা অ্যাজমা- এ তিনের মধ্যে সম্পর্ক আছে, যাদের হাঁপানি আছে তাদের ৫৫-৭০ জনের নাকে অ্যালার্জি থাকে।

চিকিৎসা : প্রাথমিক চিকিৎসা হল ধূলাবালি, ধোঁয়া ও ঠাণ্ডা এড়িয়ে চলা। প্রাথমিক পর্যায়ে ধরা পড়লে নাকে স্টেরয়েডজাতীয় স্প্রে ব্যবহার করলে পলিপ চলে যায়।

পলিপ যখন নাককে সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেয় তখন অপারেশন ছাড়া উপায় থাকে না। স্থানিক অবশ করে বা রোগীকে অজ্ঞান করে পলিপ ফেলে দেয়া যায়।

পলিপের সর্বাধুনিক ও উত্তম চিকিৎসা হল অ্যান্ডোসকোপের সাহায্যে পলিপগুলো শেকড় থেকে ফেলে দেয়া। সাইনাসে পলিপ হলেও অ্যান্ডোসকপের মাধ্যমে ফেলে দেয়া সম্ভব।

পলিপ তাদের উৎপত্তিস্থল থেকে সম্পূর্ণ ফেলে দিলে সাধারণত নতুন করে আর পলিপ হয় না। মনে রাখা দরকার, পলিপ ছাড়াও নাকে মারাত্মক ইনফেকশন, টিউমার, ক্যান্সার ও কিছু জটিল সমস্যা আপাতদৃষ্টিতে পলিপ আকারে প্রকাশ পেতে পারে।

এক্ষেত্রে বায়োপসি করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

নাক কান গলা বিশেষজ্ঞ ও সার্জন,
ইমপালস হাসপাতাল, তেজগাঁও, ঢাকা

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর/এইচ কে

১৪ আগষ্ট, ২০১৭ ১৪:৫৬ পি.এম