President

চট্টগ্রামের বহুল প্রচারিত দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকার সম্পাদক সদ্য প্রয়াত স্থপতি তসলিমউদ্দিন চৌধুরীসহ চট্টগ্রামের সাত সফল ব্যক্তিত্বকে চট্টলার বীর-২০১৭ সম্মাননা দিয়েছে চট্টগ্রামের প্রথম লাইফস্টাইল ম্যাগাজিন ক্লিক। একই সাথে এই প্রজন্মের সফল ৭ তরুণকে তারুণ্যের কান্ডারি হিসেবে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের শিল্পকলা একাডেমীর মুক্তমঞ্চে তৃতীয়বারের মতো চট্টলারবীর ও তারুণ্যের কান্ডারি সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ক্লিক পরিবার।


চলতি ২০১৭ সালে ক্লিক চট্টলার বীর সম্মানোনা প্রাপ্ত সফল ব্যক্তিরা হলেন, চট্টগ্রামের আধুনিক দৈনিকের রূপকার দৈনিক পূর্বকোণ সম্পাদক {সদ্য প্রয়াত} স্থপতি তসলিমউদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রামের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য, নারী নেত্রী সাবিহা মুসা, রাজনীতিবিদ ও চট্টগ্রাম চেম্বারের ভাইস প্রেসিডেন্ট সৈয়দ জামাল উদ্দিন আহমেদ, বিশিষ্ট শিল্পোদ্যোক্তা মো. মুজিবুর রহমান, শিক্ষাবিদ হেলাল উদ্দিন নিজামী, উদ্যোক্তা সরওয়ার জাহান এবং আবাসন শিল্পোদ্যোক্তা আবদুল কৈয়ুম চৌধুরী ।

২০১৭ সালের তারুণ্যের কান্ডারি হিসেবে সম্মাননা প্রাপ্ত সফল তরুণরা হলেন, রাইসল ইসলাম সৈকত (উদ্যোক্তা), জসীম আহমেদ (উদ্যোক্তা), অসীম কুমার দাশ (উদ্যোক্তা), রাশেদ চৌধুরী (উদ্যোক্তা), সাংবাদিক শুকলাল দাশ, সফল পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী এবং বাংলাদেশের একমাত্র নারী ওসি মরজিনা আক্তার মর্জু।

সফল ব্যক্তিদের হাতে সফলতার শুভেচ্ছা স্মারক তুলেদেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সোস্যাল ইসলামি ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ারুল আজিম আরিফ এবং অনুষ্ঠানের উদ্বোধক চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি ড. এস এম মনিরুউজ-জামান, বিপিএম,পিপিএম।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা, পিপিএম, চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহমুদা বেগম সোনিয়া, ক্লিকের উপদেষ্টা ফ্যাশন ডিজাইনার রওশন আরা চৌধুরী, কাজি শাহতাজ মুনমুন, এইচ এম ইলিয়াছ প্রমুখ।

ক্লিক ম্যাগাজিনের প্রধান সম্পাদক নিয়াজ মোর্শেদ এলিট’র সভাপতিত্বে সম্মাননা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ক্লিক সম্পাদক জালাল উদ্দিন সাগর। সঞ্চালনা করেন ক্লিকের সহ সম্পাদক আরাফাত রূপক।

ক্লিক পরিবারের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে প্রধান অতিথি অধ্যাপক আনোয়ারুল আজিম আরিফ বলেন, ভালো কাজ মানুষকে বিশাল করে তুলে। আমাদের এই চট্টগ্রাম যাদের গুণে আজ বিশ্ব¦ব্যাপী পরিচিত ও সমাদৃত হয়েছে এবং হচ্ছে তাদেরকে সম্মান জানিয়ে ক্লিক ভালো কাজ করার জন্য যে উৎসাহ যুগিয়ে যাচ্ছে তা প্রসংশার দাবী রাখে। তিনি আরও বলেন, চট্টগ্রাম ঐতিহাসিক ভাবে সম্বৃদ্ধ একটি অঞ্চল। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে লালন করে আরও অনেকদূর নিয়ে যেতে হবে।

সম্মাননা প্রদানে দেশীয় সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে তুলে ধরে অনুষ্ঠিত হয় নাচ, গান, ফ্যাশন কিউ। মুক্ত মঞ্চের এই অনুষ্ঠানটি কয়েকহাজার দর্শক উপভোগ করেন।

উদ্বোধক ড.এস এম.মনির-উজ-জামান, বলেন, চট্টগ্রাম ঐতিহ্যবহি একটি নগরী। এই অঞ্চলের মানুষের মন ও মানুষিকতা অন্য অঞ্চলের মানুষের চেয়ে ভিন্ন। তিনি বলেন, কৃষ্টি-সংস্কৃতিকে সম্বৃদ্ধ এই অঞ্চলের প্রাকৃতিক অবকাঠামো চট্টগ্রামের মানুষকে মহৎ করে তুলেছে।

জেলা পুলিশ সুপার নুরেআলম বলেন, ভালোকাজ করার মানুষিকতা সবার থাকেনা। যারা ভালোকাজ করেন তাদের কাজের স্বীকৃতি কাজ করতে অনুপ্রেরণা যোগগায়।

চট্টলার বীর সম্মাননাপ্রাপ্ত নারী নেত্রী সাবিহা মূসা বলেন, ক্লিক পরিবার আমাদের সম্মানিত করে কাজ করার দায়বদ্ধতা বাড়িয়ে দিয়েছে। এই চট্টগ্রামকে এগিয়ে নিয়ে যেতে আমরণ সংগ্রাম করে যাবেন বলেও জানান তিনি।

রাজনীতিবিদ সৈয়দ জামাল আহমেদ বলেন, প্রাকৃতিক ভাবে সম্বৃদ্ধ এই চট্টগ্রামকে অধুনীক নগরি হিসেবে গড়ে তুলতে রাজনীতিবিদদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের এক যোগে কাজ করতে হবে।

স্বাগত বক্তবে ক্লিক সম্পাদক বলেন, এই চট্টগ্রামের উন্নতিতে যারা কাজ করছে আমাদের কাছে তাঁরাই চট্টগ্রামের অগ্রদূত, চট্টলার বীর। তিনি আরও বলেন, ক্লিক পরিবার সে সব সংগ্রামী, লড়াকু সৈনিককে শ্রদ্ধাভরে সম্মাননা জানাতে চায়। কৃতজ্ঞচিত্তে দিকেদিকে জানান দিতে চায় সে সব সম্মানিক লড়াকুদের সফলতার গল্প। ক্লিক পরিবার মনে করে এই চট্টগ্রামকে আজকের চট্টগ্রামে রূপান্তরিত করতে একজন কৃষকের যেমন অবদান রয়েছে ঠিক তেমনি অবদান রয়েছে রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ী, চাকুরীজীবী, সাংবাদিক, আইনজ্ঞ, লেখক, শিল্পী ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিদের। যিনি এই নগরে ঠেলাগাড়ি চালিয়ে জীবন-যাপন করেন তিনিও কিন্তু পরোক্ষভাবে এই চট্টগ্রামকে ঠেলে নিয়ে যাচ্ছেন সামনের দিকে।

ক্লিকের প্রধান সম্পাদক নিয়াজ মোর্শেদ এলিট বলেন, ভিন্ন-ভিন্ন পেশার ভিন্ন-ভিন্ন মানুষের ব্যক্তি ও সমষ্টিগত উদ্যোগ আজকের চট্টগ্রামের কপালে সেঁটে দিয়েছেন সাফল্যের রাজটিকা। ক্লিক পরিবার প্রতিবছর সেসব সফল ও গুণী ব্যক্তিদেও সম্মানোনা জানানোর যে উদ্যোগ গ্রহন করেছে তা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, ক্লিক পরিবার প্রবীণ ও নবীনের সাফল্যের গল্পগাঁথার যে ইতিহাস প্রচার করছে তা চট্টগ্রামসহ দেশ গঠনে ব্যপক ভুমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে দেশীয় সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে তুলে ধরে অনুষ্ঠিত হয় নাচ, গান, ফ্যাশন কিউ। মুক্ত মঞ্চের এই অনুষ্ঠানটি কয়েকহাজার দর্শক উপভোগ করেন।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/ এইচ কে/এস আর

২৫ নভেম্বর, ২০১৭ ১৪:৪৮ পি.এম