President

রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে মিয়ামারের সঙ্গে সম্পাদিত সমঝোতা চুক্তির ভবিষ্যৎ নিয়ে ‘হতাশা’ ব্যক্ত করেছে বিএনপি। একই সঙ্গে তারা সমঝোতা চুক্তিটি জনসমক্ষে প্রকাশের দাবিও জানিয়েছে।

শুক্রবার সকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ দাবি জানান।

বৃহস্পতিবার মিয়ানমার-বাংলাদেশের মধ্যকার সম্পাদিত সমঝোতা চুক্তির পর বিএনপির পক্ষ থেকে এটিই আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা খুব হতাশ হয়েছি। ওই চুক্তির মূল বিষয়গুলো আমরা জানি না। বিষয়টি জনসমক্ষে আনা হয়নি। এই চুক্তির ফলে রোহিঙ্গারা নিজেদের জায়গায় ফিরে গেলে তারা নিরাপত্তা পাবে কিনা, ফের গণহত্যার শিকার হবে কিনা- এ বিষয়গুলো এখন পর্যন্ত আমরা কিছুই জানি না।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের ওপর এখনও মিয়ানমার সেনাবাহিনী নির্যাতন করছে, অত্যাচার করছে। প্রতিদিনই মিয়ানমার থেকে বহু লোক বাংলাদেশে আসছে। এই অত্যাচার-নির্যাতন-গণহত্যা বন্ধ না করে আবার সেখানে তাদের ফিরিয়ে নেয়ার চেষ্টা করার মানে হল- তাদের আরেকটি নরকের মধ্যে ঠেলে দেয়া।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সম্পাদিত সমঝোতা চুক্তি জনসমক্ষে প্রকাশ চান কিনা প্রশ্ন করা হলে মির্জা ফখরুল বলেন, অবশ্যই, অবশ্যই জনসমক্ষে চাই।

সহিংতার মুখে মিয়ানমারের রাখাইন থেকে পালিয়ে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে বৃহস্পতিবার মিয়ানমারের রাজধানী নেইপিদোতে সমঝোতা চুক্তি (এমওইউ) সই হয়। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী ও মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর দফতরের মন্ত্রী কিয়াও তিন্ত সোয়ে এ চুক্তিতে সই করেন।

মির্জা ফখরুল সমঝোতা চুক্তির বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, আশা করব যে, মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের চুক্তিটি সত্যিকার অর্থে সেখানে তাদের নাগরিকত্বের মর্যাদা দিয়ে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য ব্যবস্থা করবে। অন্যথায় এটি একেবারেই একটা ব্যর্থ চুক্তি হবে।

সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ছোট ভাই সদ্য প্রয়াত আহমেদ কামালের বায়তুল মোকাররমে জানাজায় যাওয়ার আগে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন দলটির মহাসচিব।

এ সময়ে বিএনপির সহদপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু ও চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান উপস্থিত ছিলেন।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/ এইচ কে/এস আর

২৪ নভেম্বর, ২০১৭ ১৯:৫৯ পি.এম