President

কংগ্রেস সভাপতি প্রার্থী হিসেবে রাহুলের নাম ঘোষণা করেছে দলটির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী পর্ষদ কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি (সিডব্লিউসি)।

সোমবার দলীয় সভাপতি সোনিয়া গান্ধীর নেতৃত্বে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসে সিডব্লিউসি। খবর এনডিটিভির।

প্রত্যাশিতভাবেই সেখানে দলের পরবর্তী সভাপতি হিসেবে রাহুলের নাম প্রস্তাব করে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি এবং তা পাসও হয়ে যায়।

সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ডিসেম্বরেই কংগ্রেস তার নতুন সভাপতি হিসেবে রাহুলকে পাচ্ছে। ১৭ বছর ধরে কংগ্রেসের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করা মা সোনিয়া গান্ধীর স্থলাভিষিক্ত হতে যাচ্ছেন তিনি।

দলের সভাপতি পদে রাহুলের অভিষেকের পথ চওড়া করতে সোমবার ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডেকেছিলেন সোনিয়া গান্ধী। গত ১৭ বছর ধরে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সোনিয়াই দলের সভাপতি হিসেবে কাজ চালাচ্ছেন।

কিন্তু গুজরাটে বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাহুলের রাজনৈতিক ওজন আরও বাড়াতে চায় কংগ্রেস। সেই লক্ষ্যেই তাকে সভাপতির পদে আনার তোড়জোড় শুরু হয়।

কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজওয়ালা বলেন, ‘দলের পরবর্তী সভাপতি নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। রাহুল গান্ধীর নাম প্রস্তাব করেছে ওয়ার্কিং কমিটি। তা পাসও হয়েছে।

যদি আর কেউ প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল না করেন, তবে তিনিই হচ্ছেন দলের পরবর্তী সভাপতি।

কংগ্রেসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সভাপতি পদের নির্বাচনের জন্য আগামী ১ ডিসেম্বর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। মনোনয়ন জমা দেয়ার শেষ তারিখ ৪ ডিসেম্বর। ওই দিন বিকাল ৩টা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে।

পরের দিন অর্থাৎ ৫ তারিখ ওই মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে। প্রার্থীপদ প্রত্যাহারের শেষ দিন ১১ ডিসেম্বর। প্রার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হবে ওই দিন বিকাল ৪টায়।

আগামী ১৬ ডিসেম্বর নির্বাচন। গণনা ও ফল প্রকাশ ১৯ তারিখ। যদিও কংগ্রেস সূত্রে বলা হয়েছে, রাহুল ছাড়া এখনও পর্যন্ত অন্য কোনো প্রার্থীর কথা তাদের জানা নেই। সম্ভাবনাও নেই বলে তাদের আশা। সে ক্ষেত্রে ৪ তারিখেই কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে রাহুলের নাম ঘোষণা করা গেলেও যেতে পারে।


টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/ এইচ কে/এস আর

২০ নভেম্বর, ২০১৭ ১৬:৫৯ পি.এম