President


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর শফিউল ইসলাম লিলন হত্যাকান্ডের তিন বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো বিচারকার্য সম্পন্ন হয়নি। সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে মানববন্ধন, ক্লাস পরীক্ষা বন্ধসহ বিভিন্নভাবে প্রতিবাদ করা হয়েছে। এরপরও মামলার যথাযথ অগ্রগতি না হওয়ায় সুষ্ঠু বিচার নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকবৃন্দ।
এদিকে এ হত্যার দ্রুত বিচার দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের সামনে এ কর্মসূচির আয়োজন করে তারা। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।


মানববন্ধনে শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর নজরুল ইসলাম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা মুক্ত বুদ্ধির চর্চা করেন তাদের হত্যা করা হয়। ইতোপূর্বে আরও তিন শিক্ষক হত্যাকান্ডের বিচার হয়নি। ক্লাস পরীক্ষা বাদ দিয়ে আমরা সহকর্মীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করি। আর কতদিন এভাবে রাস্তায় দাড়িয়ে আমাদের বিচার চাইতে হবে।
এসময় তিনি আরও বলেন, আর কোন শিক্ষককে যেন নৃশংসভাবে হত্যাকান্ডের শিকার না হতে হয় সেজন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানান তিনি।
বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর রুহুল আমিনের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য দেন সমাজকর্ম বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ছাদেকুল আরেফিন মাতিন, বাংলা বিভাগের প্রফেসর সরকার সুজিত কুমার, আইন বিভাগের প্রফেসর হাসিবুল আলম প্রধান প্রমুখ।


উল্লেখ্য, গত ২০১৪ সালের ১৫ নভেম্বর দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন চৌদ্দপাই এলাকায় নিজ বাড়ির সামনে খুন হন তিনি। পরের দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এস্তাজুল হক বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি করে মতিহার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২৩ নভেম্বর এই হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে যুবদল নেতা আব্দুস সামাদ পিন্টুসহ ৬ জনকে আটক করে র‌্যাব। পরে পিন্টুর স্ত্রী নাসরিন আখতার রেশমাকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে রেশমা আাদলতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

১৬ নভেম্বর, ২০১৭ ১৫:৫৩ পি.এম