President

লাইব্রেরি জ্ঞানের ভাণ্ডার । হাজারো তত্ত্ব ও তথ্য সংবলিত এই পাঠগৃহ সকল পেশার মানুষের মনের চাহিদা পূরণ করে দিচ্ছে । জ্ঞান পিপাসার পাশাপাশি নানা আয়োজনের মাঝে গ্রন্থাগার এখন নতুন ভাবে দক্ষ ও যোগ্য ব্যক্তি গড়তে ভূমিকা পালন করছে। পৃথিবীর হাজারো উল্লেখযোগ্য লাইব্রেরির মধ্যে বিশ্ব বিখ্যাত পাঁচ লাইব্রেরি সম্পর্কে জেনে নিন ...


১। ব্রিটিশ লাইব্রেরি
ব্রিটিশ লাইব্রেরি পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বৃহত্তম লাইব্রেরি । প্রায় ১৭০ মিলিয়ন বই, পাণ্ডুলিপি, সাময়িকী, মানচিত্র, সংগীত সহ নানান তথ্য সংবলিত গবেষণাগার এটি । যুক্তরাজ্যের জাতীয় লাইব্রেরি হিসেবেও এর পরিচয় রয়েছে। লন্ডনে লাইব্রেরিটি অবস্থিত । প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৭৩ সালে । পৃথিবীর বহু প্রাচীন পাণ্ডুলিপিগুলো এই লাইব্রেরিতে সংগ্রহীত আছে । প্রায় ৪ হাজার বছর পূর্বের কাহিনি, ইতিহাস ও আদি তথ্য নিয়ে লাইব্রেরিটি হাজারো দর্শকের মন কেড়েছে । প্রতিদিন এটি জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত । জনপ্রিয় সিরিজ, বই ও প্রাচীন পাণ্ডুলিপি নিয়ে নিয়মিত মেলা প্রদর্শন করে আসছে লাইব্রেরিটি।


২। লাইব্রেরি অব দ্য ইউএস কংগ্রেস
লাইব্রেরি অব দ্য ইউএস কংগ্রেস যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে এবং বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম লাইব্রেরি। ৩ হাজারেরও অধিক কর্মী নিয়ে এটি ওয়াশিংটনে অবস্থিত । ৪৫০টি ভাষার বই ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র এই লাইব্রেরিতে রয়েছে যা একজন ব্যক্তির গবেষণার আশ্রম হিসেবে পরিচিত । ১৮০০ সালে ওয়াশিংটনে লাইব্রেরিটি প্রতিষ্ঠিত হয় এবং আমেরিকার গৃহ যুদ্ধের পর এটি বিস্তরভাবে পরিচিতি লাভ করতে থাকে। মেলা প্রদর্শন, নানা প্রকাশনা ও সাহিত্যের বিভিন্ন দিক নিয়ে পুরো বিশ্ব জুড়ে এটির অগ্রসর হয়েছে । সাধারণের জন্য লাইব্রেরিটি খোলা থাকলেও বর্তমানে শুধু সরকারি কর্মকর্তাগণই বিশেষভাবে প্রবেশ করেন এই লাইব্রেরিটিতে এবং বই ও অন্যান্য জিনিসপত্র ব্যবহার করে থাকেন। বেশ কয়েক বছর ধরে আমেরিকার শিল্প, লোকসংস্কৃতি, সাহিত্যের গবেষণা ও উন্নয়নের জন্য লাইব্রেরিটি বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়ে আসছে যা নিজ দেশীয় ভাব ও ঐতিহ্য তুলে ধরবে আগামী প্রজন্মের কাছে ।

৩। লাইব্রেরি অ্যান্ড আর্কাইভস কানাডা
কানাডার গর্ব ‘লাইব্রেরি অ্যান্ড আর্কাইভস কানাডা’, যা দেশটির একটি জাতীয় লাইব্রেরি ও জাতীয় আর্কাইভ । ছায়াছবি, গান, সংবাদপত্র, সাহিত্য, বিজ্ঞানসহ বিভিন্ন রকমের বই নিয়ে এটি তৃতীয় বৃহত্তম লাইব্রেরি । অটোয়ার ওয়েলিংটন স্ট্রিটে এই লাইব্রেরিটি সরকারি ভাবে পরিচালিত । কানাডার ইতিহাস ও ঐতিহ্যসহ নানা তথ্য নিয়ে এটি জনসাধারণের কাছে পৌঁছে দিয়েছে শিক্ষার সকল দিক । ২০ মিলিয়ন বই, ২৪ মিলিয়ন ছবি ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র রয়েছে এই লাইব্রেরিতে । কানাডিয়ান লাইব্রেরিটি ২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে অল্প সময়ের মাঝে বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

৪। নিউইয়র্ক পাবলিক লাইব্রেরি
নিউইয়র্ক পাবলিক লাইব্রেরি আমেরিকার চতুর্থ বৃহত্তম লাইব্রেরি । প্রায় ৫৫০ লক্ষ বই, সাময়িকী ও অন্যান্য সংগ্রহীত উপকরণ নিয়ে এটি বিস্তর ভূমিকা পালন করছে । এটি আমেরিকার বইপ্রেমী, ছোট-বড় লাইব্রেরি ও ধনাঢ্য ব্যক্তিমহোদয়ের উদ্যোগে বৃহৎ একটি লাইব্রেরিতে রূপ লাভ করেছে যা বর্তমানে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের আর্থিক সহায়তায় পরিচালিত । ১৮৯৫ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয় । নিউইয়র্কবাসীদের শিক্ষার মান উন্নয়নে ও জ্ঞান আহরণের জন্যে বছরে প্রায় ১০৩,০০০ অনুষ্ঠান আয়োজন করে আসছে লাইব্রেরিটি ।


৫। রাশিয়ান স্টেট লাইব্রেরি
রাশিয়ার মস্কো শহরে বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম লাইব্রেরি ‘রাশিয়ান স্টেট লাইব্রেরি’ অবস্থিত । এটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৮৬২ সালে । রাশিয়ার সকল প্রকাশনার কমপক্ষে একটি করে কপি এই লাইব্রেরিতে রয়েছে যার সংখ্যা দাঁড়িয়ে এখন প্রায় ১৫০ লক্ষ বই, ১৩০ লক্ষ পত্রিকা ও ১৫০,০০০ মানচিত্রে পৌঁছেছে । লাইব্রেরিটির দীর্ঘ কিলোমিটার জুড়ে সাহিত্য ও সঙ্গীতকর্ম বিষয়ক কাগজাদি দিয়ে এটি সকলের কাছে দৃষ্টিনন্দন করে নিয়েছে । রাশিয়ান সকল জনসাধারণের জন্য এটি উন্মুক্ত । প্রতিদিন হাজার হাজার দর্শক জ্ঞান অন্বেষণ ও লাইব্রেরি দর্শনের জন্য এখানে এসে থাকেন।


টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

০১ নভেম্বর, ২০১৭ ১৭:৫৭ পি.এম