President

ধারাবাহিকভাবে ৪০ দিন জামাতের সাথে ফজরের নামাজ আদায় করলে বাইসাইকেল পুরস্কার পাবে তুরস্কের শিশু-কিশোররা। শিশু-কিশোরদের নামাজের প্রতি উৎসাহ বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে তুরস্কের ইস্তাম্বুলের ফাতেহ জেলার সুলতান সেলিম মসজিদ কর্তৃপক্ষ এমন পুরস্কার প্রদানের কথা ঘোষণা করেছেন।


ঘোষণায় বলা হয়, পনের বছরের কম বয়সী যে কোনো শিশু-কিশোর যদি টানা চল্লিশ দিন জামাতের সাথে ফজরের নামাজ আদায় করতে সক্ষম হয়, তবে তাকে মসজিদের পক্ষ থেকে একটি বাইসাইকেল পুরস্কার দেওয়া হবে। শুক্রবার এই ঘোষণা প্রাথমিক মেয়াদ শেষ হয় এবং ওয়াদা পালনকারী শিশু-কিশোরদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ করা হয়।
মসজিদ কর্তৃপক্ষের এই ষোষণাকে পজেটিভভাবে গ্রহণ করেছেন এলাকাবাসী। তারা জানান, পুরস্কারটা বড় বিষয় নয়, শিশু-কিশোরদের নামাজে অভ্যস্ত বানানোটা মূল বিষয়। আর যেহেতু এই বয়সে পুরস্কারের প্রতি আলাদা একটি ঝোক থাকে তাই এই ঘোষণা খুব ভালো কাজে আসবে।


বাস্তব অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এই ঘোষণা প্রদানের পর শুধু সুলতান সেলিম মসজিদে নয় তুরস্কের অন্যান্য মসজিদের কিশোর বয়সীদের নামাজে অংশ গ্রহণ করার প্রবনতা বৃদ্ধি পেয়েছে।
মসজিদ কর্তৃপক্ষ জানান, রাসূলের (সা.) একটি হাদিসে এসেছে, রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি চল্লিশদিন জামাতের সাথে তাকবিরে উলার সঙ্গে (নামাজ শুরুর তাকবিরের সঙ্গে) পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করবে বা করল- তার জন্য দুটি নাজাত বা মুক্তি লিপিবদ্ধ করা হবে- ১. জাহান্নাম থেকে মুক্তি এবং ২. মুনাফিকের তালিকা থেকে মুক্তি।’ (সহিহ বোখারি) তারা জানান, আমরা এই হাদিসটির মর্মবাণী থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। মসজিদ কর্তৃপক্ষ আরও বলেন, আমাদের বিশ্বাস এই উদ্যোগের ফলে শিশু-কিশোরদের মাঝে নামাজের অভ্যাস গড়ে উঠবে এবং এতে বড়রাও উৎসাহিত হবেন।


এমন ঘোষণা প্রদানের পর থেকে শুরু করে যেসব শিশু-কিশোররা টানা চল্লিশ দিন জামাতের সাথে ফজরের নামাজ আদায় করেছে তাদেরকে বাইসাইকেল পুরস্কার দেওয়ার জন্য একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সূত্র- প্রিয় ইসলাম


টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

 

২৪ অক্টোবর, ২০১৭ ১৪:৪৮ পি.এম