President

দেশ ও সমাজে অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ এবার ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’র জন্য মনোনীত হয়েছে ৫০ জন তরুণের প্রতিষ্ঠান।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় আগামী ২১ অক্টোবর এক অনুষ্ঠানে তরুণদের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেবেন বলে জানা যায়।
পুরস্কার পাওয়া ৫০ প্রতিষ্ঠানসহ মোট ১০০ প্রতিষ্ঠানের তরুণ উদ্যোক্তারা ২০-২১ অক্টোবর দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে নিজেদের প্রতিষ্ঠান নিয়ে কথা বলার সুযোগ পাবেন।
ইয়ং বাংলা পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান সিআরআইয়ের থেকে জানা যায় এবার সামাজিক উন্নয়ন, সাংস্কৃতিক কার্যক্রম, ক্রীড়া উন্নয়নসহ আরও বেশ কিছু বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। এবার পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ, সমাজ থেকে যে কোনো ধরনের নিষ্ঠুরতা ও সহিংসতা দূরীকরণ এবং মাদক থেকে তরুণদের দূরে রাখার কার্যক্রমে সহায়তা করেছে।
“এগুলোর পাশাপাশি শিশুদের সামাজিক সহায়তা প্রদান, স্কুল থেকে ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সহায়তা প্রদান, পথ শিশু, শিশু বা প্রতিবন্ধীদের সহায়ক কার্যক্রম, অসহায় নারী, বৃদ্ধ, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়, শরণার্থী, হত-দরিদ্র ও সমাজের অসহায়দের সহায়ক কার্যক্রমের জন্যও পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে।”


ইয়ং বাংলার বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, এবারের জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ডের আবেদনপত্র আহ্বানের পর দেশের ৪৪টি শহরে এবং ৩২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্যাম্পেইন চালানো হয়। এই আয়োজনের শুরু থেকে ‘আশাতীত’ সাড়া পায় ইয়ং বাংলা। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ১৩০০ প্রতিষ্ঠানের আবেদন আসে।
১৯ অগাস্ট আবেদনের সময়সীমা শেষ হলে শুরু হয় বাছাই কার্যক্রম। প্রাথমিক পর্যায়ে পাওয়া ১৩০০ আবেদনপত্র থেকে বাছাই করা হয় ১০০টিকে।এর মধ্যে থেকে সমাজে এই প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রভাব এবং কার্যকারিতা বিবেচনায় এনে ৫০টি প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়।


এ ব্যাপারে তরুণ সংগঠক ডি ইঞ্জিনিয়ার্স ক্লাবের প্রেসিডেন্ট সোমেন কানুনগো বলেন, তরুণদের মধ্যে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি, মূল্যবোধ তৈরী,শিক্ষার্থীদের স্কিল ডেভেলপমেন্ট সহ অনেক ভিন্নধর্মী প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করছে আমাদের ক্লাব।তাছাড়া চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তরুণদের মধ্যে দক্ষতা বৃদ্ধি এবং তরুন নেতৃত্ব সৃষ্টির লক্ষ্যে আমরা বদ্ধপরিকর। এছাড়া তিনি ধন্যবাদও অভিবাদন জানান ক্লাবের সকল সদস্য, কর্মকর্তা ও উপদেষ্টাদের।
উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে প্রথমবার জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ডের আয়োজনে ১৫০০ আবেদন থেকে ৩০ জন তরুণ ও তাদের প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করা হয়।
তরুণদের চাকরির সুযোগ সৃষ্টি, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ, বয়স্ক শিক্ষা এবং সাংস্কৃতিক কার্যক্রমের জন্য এই পুরস্কার পায় তারা। বিগত দুই বছরে এই ৩০ জন পুরস্কার বিজয়ীকে নিয়ে নানা আয়োজন করে ইয়ং বাংলা।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

১৬ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:৫৯ এ.ম