President

লন্ডনের গ্রেনফেল টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখনো অন্তত ৫৮ জন নিখোঁজ রয়েছে। তাদের সবাই মারা গেছে বলে পুলিশ ধারণা করছে।

 

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমান্ডারের বরাত দিয়ে আজ শনিবার বিবিসি অনলাইনের খবরে এ কথা জানানো হয়।

 

গত মঙ্গলবার গ্রেনফেল টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ৩০ জনের মৃত্যুর বিষয়টি আগেই নিশ্চিত করা হয়েছে।

 

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমান্ডার স্টুয়ার্ট ক্যান্ডি বলেছেন, ৫৮ জন নিখোঁজ আছেন। ধারণা করা হচ্ছে, তারা মারা গেছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। উদ্ধার অভিযান শেষ করতে আরও এক সপ্তাহ সময় লাগবে। তিনি বলেন, ‘যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আমরা উদ্ধার কাজ শেষ করব। স্বজনদের কাছে মৃতদেহ ফিরিয়ে দেব।’

 

কমান্ডার স্টুয়ার্ট ক্যান্ডি অনুরোধ করেছেন, যদি কেউ ওই ভবন থেকে নিরাপদে বেরিয়ে এসে থাকেন, তা যেন কর্তৃপক্ষকে জানান। বিবিসির পক্ষ থেকে বলা হয়, ওই ভবনের প্রায় ৭০ জন মানুষ নিখোঁজ ছিলেন। নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে শুক্রবার টাওয়ারটিতে অনুসন্ধান কাজ স্থগিত করা হয়েছিল। কিন্তু উদ্ধার অভিযান পুনরায় চালু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কমান্ডার ক্যান্ডি।

 

এদিকে, ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহত ব্যক্তির প্রকৃত সংখ্যা গোপনের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অনেকে অভিযোগ করছেন। বিক্ষুব্ধ জনতা গতকাল শুক্রবার স্থানীয় কর্তৃপক্ষ কেনসিংটন অ্যান্ড সেলটি কাউন্সিলের সামনে বিক্ষোভ করেছে। তাদের দাবি ছিল, গ্রেনফেল টাওয়ারের বাসিন্দাদের তালিকা প্রকাশ করা। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তা করেনি।

 

গত মঙ্গলবার স্থানীয় সময় রাত ১টা ১৬ মিনিটে ২৪ তলা ভবন গ্রেনফেল টাওয়ারে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের প্রায় দুই শতাধিক কর্মী আগুন নেভাতে কাজ শুরু করে। গত বছরের সত্তরের দশকে নির্মিত নটিংহিলের কাছে অবস্থিত ওই আবাসিক এই ভবনে ১২০টি ফ্ল্যাট ছিল।

১৭ জুন, ২০১৭ ১৮:৪২ পি.এম