President

৯ দলের অংশগ্রহণে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ও ১৩ দল নিয়ে ওয়ানডে লিগ আয়োজনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।

অকল্যান্ডে শুক্রবার আইসিসির গভর্নিংবডির সভার শেষ দিনে টুর্নামেন্ট দুটি চালু করার এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভাশেষে আইসিসির সিইও ডেভিড রিচার্ডসন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রিচার্ডসন জানান, ১২ দলের মধ্যে শীর্ষ ৯ দলকে নিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হবে ২০১৯ বিশ্বকাপের পর। ফাইনাল হবে ২০২১ সালের জুনে ইংল্যান্ডে। এপ্রিলের মধ্যে যে দুটি দল শীর্ষে থাকবে তারাই ফাইনাল খেলবে।

তিনি আরও জানান, প্রতিটি দল এ সময়ে ছয়টি সিরিজ খেলবে। তিনটি ঘরের মাঠে, তিনটি বাইরে। প্রতিটি সিরিজেই অন্তত দুটি ম্যাচ খেলতে হবে অংশগ্রহণকারী দলগুলোকে। তবে অ্যাশেজের মতো ঐতিহ্যবাহী সিরিজগুলো যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, এ কারণে ম্যাচ সংখ্যা পাঁচ পর্যন্ত বাড়ানোর সুযোগ থাকছে সবার।

এদিকে ১৩ দলের ওয়ানডে লিগ শুরু হবে ২০২০-২১ মৌসুমে। এটি চলবে ২০২৩ বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত। প্রথমবার দুবছর হলেও এর পর থেকে ওয়ানডে লিগ চলবে তিন বছর।

দলগুলো এই সময়ে আটটি সিরিজ খেলার সুযোগ পাবে। প্রতিটি সিরিজ হবে তিন ম্যাচের। ফলে পাঁচ বা সাত ওয়ানডের সিরিজ আর দেখা যাবে না।

এদিকে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের সব ম্যাচ পাঁচ দিনের হলেও ২০১৯ সাল পর্যন্ত চার দিনের টেস্ট নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার অনুমতি দিয়েছে আইসিসি।

আগামী কিছু দিনের মধ্যেই চার দিনের টেস্টের জন্য নিয়মকানুন ঠিক করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সব ঠিক থাকলে দক্ষিণ আফ্রিকা ও জিম্বাবুয়ের মধ্যকার সিরিজেই চার দিনের টেস্ট ম্যাচ দেখতে পাবে ক্রিকেটবিশ্ব।

রিচার্ডসন বলেন, টেস্ট ক্রিকেটের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সূত্র: ক্রিকইনফো

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ১৪:৪৬ পি.এম