President

সাভার: সাভারের বিপিএটিসি এলাকায় উত্তরার মাইলস্টন স্কুল এন্ড কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র কামরুজ্জামান হাসানের হত্যাকান্ডের প্রায় দেড় মাস পর ৩ কলেজ ছাত্রকেগ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা তিনজনই নিহত হাসানের বন্ধু ছিলেন।

সোমবার ভোরে সাভারের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। নিহত কামরুজ্জামান হাসান আশুলিয়ার গাজিরচট এলাকার হারুনর রশিদের ছেলে। সে রাজধানীর উত্তরা মাইলস্টন স্কুল এন্ড কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র ছিলো।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো-ইকরাত। সে আশুলিয়ায় চাঁন মিয়ার ছেলে। সাইম ওরপে সায়েম হাসান। সে ধামরাইয়ের মো. সহিদুর রহমানের ছেলে ও অপরজন নাইম ওরপে নাইমুল ইসলাম র্দুজয়। সে সিরাজগঞ্জের আবদুল খালেকের ছেলে। তারা তিনজন সাভারের বিপিএটিসি স্কুল এন্ড কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র।

নিহতের বাবা হারুনর রশিদ জানান,ময়না তদন্তের প্রতিবেদনের পেয়ে গত ৫ অক্টোবর সাভার মডেল থানায় বাদি হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। প্রধান আসামীসহ ৩ জন গ্রেপ্তার হয়েছে। ছেলের হত্যাকারীদের বিচার চাই। কেউ যেন এধরণের ঘটনার আর না ঘটায়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সাভার মডেল থানার এস আই ফরিদ জানায়, গত ২১ আগষ্ট ঢাকা আরিচা মহাসড়কের সাভারের বিপিএটিসি এলাকায় পূর্বের ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসানের বন্ধুরা পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। হাসপাতালে নিয়ে গেলে সে মারা যায়। তবে ময়না তদন্তের প্রতিবেদনের পর নিহতের বাবা বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের দায়ের করেন। তারি পরিপ্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে ৩ জন গ্রেপ্তার করা হয়। বাকীদের গ্রেপ্তার করতে চেষ্ঠা চলছে।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

০৯ অক্টোবর, ২০১৭ ২৩:৪০ পি.এম