President

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়(চবি) সংস্কৃত বিভাগের মেধাবী ছাত্র ও ছাত্রলীগ নেতা শহীদ তাপস সরকার হত্যার প্রধান আসামী আশরাফুজ্জামান আশা ও তার দোসরদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একাংশ।এরা নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবি এম মহিউদ্দীন চৌধুরীর অনুসারী বলে পরিচিত।

সোমবার (০৯ অক্টোবর) দুপুর ২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে 'শহীদ তাপস স্মৃতি সংসদ' এর ব্যানারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সহ -সভাপতি রেজাউল হক রুবেলের সঞ্চালনায় ও স্থগিত কমিটির সাধারন সম্পাদক এইচ এম ফজলে রাব্বী সুজনের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন,তাপস হত্যা মামলার বাদী ও তাপসের বন্ধু হাফিজুল ইসলাম,তাপসের ব্যাচমেট শরীফ উদ্দীন,সংস্কৃত বিভাগের শিক্ষার্থীদের পক্ষ নিপেন সরকার,স্থগিত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর জীবন,সাংগঠনিক সম্পাদক মিনহাজুল আবেদীন প্রমুখ।

স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ফজলে রাব্বী সুজন বলেন,খুনী আশার বুলেটের আঘাতে নিভে গেছে একটি পরিবার, একটি সমাজ,একটি জাতির স্বপ্ন।প্রধান আসামী আশা কারাগারে রয়েছে। আমরা আশাবাদী খুনীরা আইনের ফাক-ফোকর দিয়ে বের হতে পারবে না।
তাপসের পরিবারের খোঁজ কেউ রাখেনি জানিয়ে তিনি বলেন,তাপস খুন হওয়ার পর তৎকালীন প্রো-ভিসি যিনি বর্তমান ভিসি তাপসের লাশ দেখতে গিয়ে বলেছিলেন তাপসের পরিবারের একজন সদস্যকে চাকরী দিবেন।কিন্তু তিনি কথা রাখেননি।জামাত শিবির চাকরী পায়,কিন্তু তাপসের পরিবার চাকরী পায় না।তাপসের খুনীদের বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের সুসংগঠিত আন্দোলন চলবে।

সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর জীবন বলেন,আমাদের দুঃখ লাগে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন হয়েও আমাদের ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা কেন বারবার খুন হয়?কেন গুম হয়?
বিশ্ববিদ্যালয়ের এ প্রসাশন থেকে শুরু করে সব প্রশাসনের প্রতি আমাদের আস্তা ছিল।কিন্তু এখন আর নাই।তাদের কাছে আর ধরনা না দিয়ে রাজপথেই আমাদের অধিকার আদায় করব।

সাংগঠনিক সম্পাদক মিনহাজুল আবেদীন বলেন,আমাদের সরকার ক্ষমতায় থাকলেও শহীদ তাপসের পরিবারের জন্য কিছু করে নাই।তাপসের পরিবার অত্যন্ত মানবেতর জীবন অতিবাহিত করছে।তার মা টাকার অভাবে চোখের চিকিৎসা করাতে পারছে না।প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ তারা যেন তাপসে পরিবারের প্রতি নজর দেয়।

মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন,স্থগিত কমিটির সহ-সভাপতি নাসির উদ্দীন সুমন,তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক শরীফুল ইসলাম,ক্রীড়া সম্পাদক মাহফুজুর রহমান,উপ প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ রাসেল,সঞ্জয় চক্রবর্তীসহ কয়েকশ নেতা -কর্মী।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

০৯ অক্টোবর, ২০১৭ ২৩:৩৬ পি.এম