President

ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার পদ্মা-আড়িয়াল খাঁ নদে সরকারের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও মৎস্য অধিদপ্তর প্রশাসনের তেমন কোন অভিযান না থাকায় প্রতিদিন জেলেদের জালে ধরা পড়ছে মা ইলিশ।
চরনাছিরপুর, দিয়ারা নারিকেল বাড়ীয়া,ঢেউখালী ও আকোটেরচর চারটি ইউনিয়নের জেলেরা বিভিন্ন সময়ে নদীতে ইলিশ শিকার করছে। জানাযায়, নদীতে পুরোপুরি অভিযান না থাকায় এবং সোর্সদের মাধ্যমে সুবিধাজনক সময়ে জেলেরা মাছ শিকার করছে। মা ইলিশ রক্ষার জন্য ২২দিন ইলিশ শিকার নিষিদ্ধ করেছে সরকার। নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করেই দাপটের সাথে ইলিশ শিকার করছে জেলেরা।
সরজমিনে গতকাল রবিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে দেখাযায়, নদীতে ইলিশ শিকারের চলছে মহোৎসব। প্রতিযোগিতায় মাছ শিকারের জন্যে নদীতে চলছে জেলে নৌকা। কয়েকজন জেলের সাথে কথা হয়, নিষেধাজ্ঞা অম্যান্য করে কেন নদীতে মাছ ধরছেন, জবাবে বলেন, সবাই তো মারছে, আমরা ছোট নৌকার, বড় নৌকার লোকজনতো প্রতিনিয়ত মারছে। অভিযানের ভিতরে আপনারা নদীতে প্রসঙ্গে বলেন, আমাদের সোর্স রয়েছে,ম ৎস্য কর্মকর্তা কখন আসে,যায় খবর পেয়ে যাই। উত্তাল নদীতে ঢেউয়ের তালে তালে তারা নৌকা নিয়ে এক সময় চলে যায়। কিছু নৌকার জেলেরা আমাদের ক্যামেরা দেখে দ্রুত চলে যায়। জেলেরা আরও জানান, গত বছরের চেয়ে এ বছর জাল ও নৌকার সংখ্যা বেশী। আপনারা মাছ ধরছেন তারা বলেন, না নদীতে নামলে জেল-জরিমানা করা হয়। সরজমিনে আরও দেখাযায়, জেলেদের নৌকা থেকে মাছ ক্রয় করতে নদীতে ট্রলার যোগে আসে ফড়িয়া ব্যবসায়ীরা। এদের মধ্যে অনেক সময় সন্ত্রাসী করেও মাছ কেড়ে জেলেদের নিকট থেকে এমনো অভিযোগ পাওয়া যায়। নিধনকৃত ইলিশ ২থেকে ৪শ টাকা পর্যন্ত কেজি ধরে বিক্রি করা হয়। নৌকায় ইলিশ শিকার শেষে বরফ দিয়ে পেডীতে মজুদ করে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ব্যক্তি জানান, কয়েক ভাগে নদীতে যদি অভিযান পরিচালনা করা হয় তাহলে মাছ ধরা বন্ধ হবে। তারা আরও বলেন, ভোর রাতে এবং সন্ধ্যার পর নদীপাড়ের অনেক জায়গায় মাছ বিক্রি হয়।
২২দিন অবরোধের ৭দিক পার হয়েছে। এ পর্যন্ত ইলিশ শিকারের দায়ে ৭৯জন কে জেল ও ১জন কে জরিমানা দায়ের করেছে আদালত।
নদীতে প্রতিনিয়ত না থাকার ফলে মন মন মা ইলিশ মাছ নিধন হচ্ছে। একবেলা অভিযান থাকার ফলে অন্য সময়ে অসাধু জেলেরা দাপটের সাথে নদী থেকে মাছ ধরছে। জাতীয় মৎস্য সম্পদ রক্ষার্থে নদীতে মোবাইলকোর্ট অব্যাহত রাখার জন্যে দাবী জানান, উপজেলার বিভিন্ন শ্রেনির মানুষ।
এব্যাপারে একাধিকবার উপজেলা মৎস কর্মকর্তা ফাতেমা আক্তার পান্নার সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।


টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

০৮ অক্টোবর, ২০১৭ ২২:২৭ পি.এম