President

অতিবৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম অঞ্চলে ভূমিধস ও বন্যাকবলিত মানুষজনের জন্য ঢাকায় বসে সংবাদ সম্মেলনে মায়াকান্না না দেখিয়ে উপদ্রুত এলাকায় গিয়ে তাদের পাশে দাঁড়াতে বিএনপি নেতাদের পরামর্শ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

 

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাছান মাহমুদ এ পরামর্শ দেন। সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।

 

সাবেক মন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, প্রথম থেকেই সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা বন্যায় ও ভূমিধসে আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা দুর্গত এলাকায় ছুটে গেছেন, ত্রাণ ও অন্যান্যভাবে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের সাহায্য করে যাচ্ছেন। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্যি বিএনপির কেন্দ্রীয় তো দূরের কথা চট্টগ্রামেরও স্থানীয় কোনো নেতাকে এখন পর্যন্ত দুর্গত এলাকায় দেখা যায়নি। তাই বিএনপি নেতাদের বলব, দয়া করে মানুষের দুর্দশা নিয়ে রাজনীতি না করে তাদের পাশে গিয়ে দাঁড়ান।

 

প্রধানমন্ত্রীর সুইডেনের সফর নিয়ে খালেদা জিয়া ও বিএনপির নেতাদের নানান মন্তব্যের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এ সফর একটি রাষ্ট্রীয় ও পূর্বনির্ধারিত সফর, এটি কোনো ঐচ্ছিক সফর নয়। দেশে দুর্যোগ হওয়ার আগেই প্রধানমন্ত্রী সফরে গেছেন। সুইডেনের প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণেই এ দ্বিপক্ষীয় সফর। দেশের বাইরে থাকলেও প্রধানমন্ত্রী নিয়মিত খোঁজখবর রাখছেন, সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে নিয়মিত নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন। ত্রাণমন্ত্রী ইতিমধ্যেই দুর্গত এলাকায় গেছেন এবং ত্রাণ বিতরণ করেছেন। আমাদের দলের সাধারণ সম্পাদকও বন্যাদুর্গত এলাকায় ছুটে গেছেন। সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা দিনরাত সেখানে ত্রাণ বিতরণ ও অন্যান্য কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

 

খালেদা জিয়ার কঠোর সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক বলেন, ১৯৯১ সালের ২৯ এপ্রিল ঘূর্ণিঝড়ের সময় চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে প্রায় এক ডজন সামরিক বিমান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল শুধু অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত না দেওয়ার কারণে; বন্দরের অনেক জাহাজ ছিঁড়ে গিয়ে সমুদ্রে চলে গিয়েছিল। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে যখন সংসদে প্রশ্ন করা হয়েছিল যে পূর্বাভাস থাকার পরেও কেন দুর্যোগ প্রতিরোধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি, কেন এত মানুষ মারা গিয়েছিল তখন খালেদা জিয়া সেদিন বলেছিলেন, যতজন মারা যাওয়ার কথা ততজন মারা যায়নি।

 

হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি হলো দেশের জনগণের শত্রু। যে দল ৯৩ দিন জনগণকে অবরুদ্ধ করে রেখেছিল, যারা ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য নিরীহ জনগণের ওপরে পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে তারা কখনোই জনগণের বন্ধু হতে পারে না। তাদের (বিএনপি) জনগণের দুর্যোগে পাওয়া যাবে না এটাই স্বাভাবিক। উপরন্তু তারা মানুষের দুঃখ-দুর্দশা নিয়ে রাজনীতি করতে ব্যস্ত।

 

এ সময় হাছান মাহমুদ তার বক্তব্যে জনগণের কথা চিন্তা করে চাল আমদানিতে ট্যাক্স প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য অর্থমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান। এ ছাড়া জনগণের কাছে ভোট চাওয়ার মাধ্যমে যে বিএনপি পরবর্তী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে তার ইঙ্গিত দেওয়ার জন্য খালেদা ধন্যবাদ জানান সাবেক এ পরিবেশমন্ত্রী।

 

হাসিবুর রহমান মানিকের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন আবদুল মান্নান, জিন্নাত আলী জিন্নাহ, এম এ করিম প্রমুখ।

১৬ জুন, ২০১৭ ১৮:৫৯ পি.এম