President

বেশ কয়েক দিন ধরেই শোনা যাচ্ছিলো ডিভোর্স হয়ে গেছে রূপবান খ্যাত সংগীতশিল্পী মিলার। গত মাসেও এমনটা মিডিয়ায় আরো জোরালোভাবে শোনা যায়। কিন্তু সেসময় অস্বীকার করেছিলেন মিলা নিজেই। তবে এবার নিজ উদ্যোগেই স্বামীকে ডিভোর্স দিচ্ছেন এমন খবর জানালেন এই সংগীতশিল্পী।

দশ বছর প্রেম করে বিয়ে করার কয়েকদিনের মধ্যে ডিভোর্স করতে চলেছেন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী মিলা। শুক্রবার রাতে তার ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা স্ট্যাটাসের মাধ্যমে তিনি এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মিলার স্ট্যাটাস থেকে জানা যায়, বিয়ের ১৩ দিনের মধ্যে তিনি জানতে পারেন তার স্বামীর একাধিক নারীর সাথে সম্পর্ক আছে। এত বছরের সম্পর্কের পর যে এমন কাজ করতে পারে তার সাথে থাকা সম্ভব নয় বলে জানান মিলা। অসৎ এমন একজন মানুষ যে নববধুকে এভাবে ঠকাতে পারে তার কারও সঙ্গে থাকার অধিকারই নেই।

মিলার মতে তিনি তারকা বলে নন, একজন মানুষ হিসেবে তিনি এটি মেনে নিতে পারছেন না এবং কারও জন্যই এটি মেনে নেয়া ঠিক না। কোন পুরুষ যেমন তার স্ত্রীর পরপুরুষে আসক্তি মেনে নেয় না, কোন স্ত্রীরও এটি মেনে নেয়া উচিত না।

তার কাজ ও গানকে ভালোবেসে এখনও জীবনকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চান মিলা। শ্রোতাদের ভালবাসাই তার সবচেয়ে বড়প্রাপ্তি মনে করেন তিনি। এত বছরেও শ্রোতারা তাকে একটুও ভুলে যাননি বলে তিনি কৃতজ্ঞ।

দশ বছরের সম্পর্কের পর তার স্বামীর প্রতারণার কথা জেনেও মিলা বিয়ে টিকিয়ে রাখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু একসময় তার স্বামী তাদের বিয়ে অস্বীকার করে তার সাথে খারাপ ব্যবহার শুরু করলে মিলা ইউএস বাংলার ব্যাবস্থাপনা পরিচালক জনাব মামুনকে সব বিষয়ে অবহিত করেন। মামুন তাকে ধৈর্য ধরতে বলেন, মিলা তারপরেও এর কোন সমাধান পান নি, পরিস্থিতির কোন উন্নতি হয়নি।

মিলা জানান, ‘শুধু মানসিক নয়, আমার স্বামী আমাকে শারীরিকভাবেও লাঞ্ছিত করেছে। শেষ পর্যন্ত আর সহ্য করতে না পেরে, নিজের ভাগ্যকে নিজের হাতে নিয়ে আমি এই সংসার থেকে বেরিয়ে আসতে বাধ্য হয়েছি।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের অধীনে উত্তরা থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে মামলাও করেছেন মিলা যার ফলশ্রুতিতে গ্রেফতার হয়েছেন মিলার স্বামী।
সমাজের যে কোন অবস্থানের কোন পুরুষ বা নারীরই তার স্ত্রী/স্বামীর এই ধরনের আচরণ মেনে নেয়া উচিত না বলে মনে করেন মিলা।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

০৭ অক্টোবর, ২০১৭ ১৬:৫৪ পি.এম