President

 

বিরোধী দল কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর কাছে আজ শুক্রবার সকালে হাজির হয়েছিলেন বিজেপির দুই শীর্ষ নেতা এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনাথ সিং ও ভেঙ্কাইয়া নাইডু। ১০ জনপথে আধা ঘণ্টা ধরে পরস্পর পরস্পরের মন বোঝার বৃথা চেষ্টা করে গেলেন। বিরোধীদের মনে কী আছে সোনিয়া যেমন তার হদিস পেতে দিলেন না, তেমনই শাসক দল রাষ্ট্রপতি হিসেবে কাকে চাইছে, তার বিন্দুমাত্র ইঙ্গিতও রাজনাথ-ভেঙ্কাইয়া দিলেন না। ফলে সর্বসম্মতিক্রমে রাষ্ট্রপতি বেছে নেওয়ার চেষ্টা এক কদমও এগোতে পারল না।

বিরোধীদের সঙ্গে কথা বলে কোনো একটি নামে সহমত হতে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ তিনজনের এক কমিটি তৈরি করে দিয়েছিলেন। রাজনাথ ও ভেঙ্কাইয়া ছাড়া তৃতীয় সদস্য হলেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। এই তিনজনের মধ্যে দুজন আজ সকালে সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেন। তাঁরা অন্য দলের নেতাদের সঙ্গেও বৈঠক করছেন।

সোনিয়ার সঙ্গে বৈঠকের পর রাজ্যসভায় কংগ্রেসের বিরোধী নেতা গুলাম নবি আজাদ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, বিজেপি নেতারা তাঁদের পছন্দের কোনো নাম জানাননি। ফলে কংগ্রেস সভানেত্রীর পক্ষে আলোচনারও কোনো অবকাশ ছিল না। সোনিয়াকে তাঁরা জিজ্ঞেস করেন, তাঁদের পছন্দের কোনো প্রার্থী রয়েছে কি না। জবাবে সোনিয়া বলেন, আপনারা আপনাদের পছন্দের নাম জানালে আমরা বিরোধীরা দেখব সেই নামে সহমত হওয়া যায় কি না। লোকসভায় কংগ্রেসের নেতা মল্লিকার্জুন খারগে একই কথা জানিয়ে বলেন, রাজনাথ ও ভেঙ্কাইয়া আসলে সোনিয়াজির মন বুঝতে এসেছিলেন। কিন্তু কংগ্রেস সভানেত্রী তাঁদের বলেছেন, সরকারপক্ষ কাকে চাইছে, তা না জানানো হলে আলোচনা এগোতে পারে না।

রাষ্ট্রপতি হিসেবে বিজেপি যে কাকে চাইছে, এখনো তার বিন্দুমাত্র কোনো ইঙ্গিত দলের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়নি। একইভাবে বিরোধীরাও যে চূড়ান্তভাবে কাকে পছন্দ করছে, স্পষ্ট করে তা জানানো হচ্ছে না। গুলাম নবি শুক্রবার বলেন, এ ক্ষেত্রে শাসক দলকেই এগোতে হবে, যেহেতু সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে তাদেরই। বিরোধীরা শুধু চায়, ধর্মনিরপেক্ষতা ও দেশের বহুত্ববাদী চরিত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল এবং সাংবিধানিক জ্ঞান থাকা কোনো অবিতর্কিত মানুষেরই রাষ্ট্রপতি হওয়া উচিত। বিজেপির পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত শুধু এটুকু বলা হয়েছে, তাদের দলীয় নীতি ও আদর্শে বিশ্বাসী এমন কাউকেই তারা রাষ্ট্রপতি পদে দেখতে চায়। দুই পক্ষ সহমত না হলে রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন ১৭ জুলাই।

১৬ জুন, ২০১৭ ১৫:১১ পি.এম