President

রাজধানীর মধ্যবাড্ডা এলাকার সোনাকাটরায় একটি ঝুপড়িঘরে আগুন লেগে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। আগুনে দগ্ধ হয়েছে তার দুই সন্তান।

রোববার ভোর পৌনে ৪টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে।

দগ্ধ শিশু আমান উল্লাহ জিসান (১১) ও মেয়ে সানজিদাকে (৮) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন ডা. পার্থ শঙ্কর পাল।

ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে, মধ্যবাড্ডায় ফার্নিচারের দোকানে আগুন লাগার খবর পেয়ে বারিধারা ফায়ার স্টেশন থেকে দু’টি ইউনিট ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। ভোররাত থেকে চেষ্টা চালিয়ে সকালে তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সফল হয়।

আগুনে ফার্নিচার দোকানের আংশিক পুড়লেও তার সঙ্গে থাকা ভাঙ্গাড়ি দোকানটি একেবারে পুড়ে যায়। এই ভাঙ্গাড়ি দোকানের ওপরেই ঝুপড়িঘরে দুই সন্তান নিয়ে মা জেসমিন আক্তার (৩৮) থাকতেন। অগ্নিকাণ্ডের সময়ও তারা সেই ঘরেই ঘুমিয়ে ছিলেন। জেসমিনের স্বামী আব্বাস উদ্দীন বিদেশে কাজ করেন।

আগুন নেভানোর পর দগ্ধ অবস্থায় জেসমিন আক্তার ও তার দুই সন্তানকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রোববার সকালে চিকিৎসাধীন জেসমিনের মৃত্যু হয়। ডা. পার্থ শঙ্কর পাল জানান, জেসমিনের দেহের ৭০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল। অন্যদিকে ছেলে আমান উল্লাহর দেহের ৩০ শতাংশ এবং মেয়ে সানজিদার ২৮ শতাংশ পুড়ে গেছে।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১১:৪২ এ.ম