President

চাকরি, ব্যবসা, ভ্রমণ বা শিক্ষার্থী হিসেবে বিভিন্ন দেশে প্রতিনিয়তই আমাদের যেতে হয়। বিদেশে যাওয়ার পর আপনার পরিচয় বহনের একমাত্র প্রমাণ হলো পাসপোর্ট। ভ্রমণে গিয়ে যদি পাসপোর্ট বিদেশের মাটিতে খোয়া যায় তবে এর চেয়ে বিপাকের কিছু হতে পারে না। অনেক সময় আইনশৃংখলা বাহিনীর কাছে সঠিক প্রমাণাদির অভাবে কারাগারেও যেতে হতে পারে আপনাকে।

তাই বিদেশের মাটিতে পাসপোর্ট হারালে কী করবেন? চলুন সে বিষয়ে জেনে নিই।

১. জিডি করুন :
যে মুহূর্তে বুঝতে পারবেন যে পাসপোর্ট সঙ্গে নেই, খুঁজে পাচ্ছেন না বা চুরি গেছে, সঙ্গে সঙ্গে নিকটস্থ থানায় সেটা জানান এবং আপনার পাসপোর্টের নাম্বার ও সম্ভব হলে ফটোকপি দিয়ে একটি জেনারেল ডায়েরি বা জিডি করে ফেলুন।
এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে উল্লেখ করতে হবে যে, আপনার পাসপোর্টে কোন কোন দেশের ভ্যালিড ভিসা রয়েছে। অনেক সময় একজনের পাসপোর্টে আর একজনকে বাইরে পাচার করিয়ে দেয়া হয়, আর এইসব পাচার হয়ে যাওয়া মানুষরা সাধারণত ক্রিমিনাল হয়ে থাকে। তাই নিজেকে নিরাপদ রাখার জন্য হলেও আপনাকে যত দ্রুত সম্ভব পাসপোর্ট হারিয়ে বা চুরি যাওয়ার বিষয়টি জানাতে হবে, নয়ত বিদেশে জেল-জরিমানা যে কোনোকিছুই হতে পারে আপনার।

২, প্রয়োজনে বাংলাদেশিদের সহযোগিতা নিন:
পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই বাংলাদেশি আছে, আজকালকার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের যুগে এদের সঙ্গে যোগাযোগ তৈরি করাও সম্ভব হতে পারে একটু চেষ্টা করলেই। আপনি দরকারে তাদের সহযোগিতাও নিতে পারেন।

৩. বাংলাদেশ হাইকমিশনে যোগাযোগ :
পাসপোর্ট হারানোর পর বাংলাদেশ হাইকমিশনে যোগাযোগ করুন।যেসব দেশে বাংলাদেশের দূতাবাস রয়েছে, তার একটি তালিকা দেখতে পারবেন। হাইকমিশনে আপনি সব তথ্য দিয়ে সহায়তা চাওয়ার পরে আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে। আপনার দেয়া তথ্য যাচাই করার পরে আপনাকে একটি সাময়িক সনদ দেয়া হবে, যেটা দিয়ে আপনি দেশে ফিরতে পারবেন। আর এই অপেক্ষার সময়টায় আপনাকে অবশ্যই সঙ্গে থানায় করা জিডির কপি সঙ্গে রাখতে হবে এবং সম্ভব হলে পাসপোর্টের ফটোকপি। এগুলো আপনার সাময়িক আইডির মতো ব্যবহার হবে।

৪, দেশে ফিরে নতুন পাসপোর্টের জন্য আবেদন :
হাইকমিশন থেকে সাময়িক সনদ দিয়ে আপনি তো দেশে ফিরতে পারলেন, দেশে ফেরার পরে আপনাকে নতুন পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে হবে সংশ্লিষ্ট ডকুমেন্ট দেখিয়ে, যার মাঝে থাকতে পারে থানায় করা জিডির ফটোকপি, সাময়িক সনদের ফটোকপি বা মূল কপি।

বিদেশে ভ্রমণ করতে গেলে সমস্যা হতে পারে- এই চিন্তা করে কিছু আগাম সতর্কতা বজায় রাখতে হবে।

১. ডকুমেন্ট ফটোকপি: আপনি আপনার বিভিন্ন ডকুমেন্টের ফটোকপি, যেমন পাসপোর্ট, ভিসা, এনডোর্সমেন্ট, বিভিন্ন রকম টিকিট ইত্যাদি জিনিসের ফটোকপি করে নিজের কাছে ও ভ্রমণ সঙ্গীর কাছে রাখতে পারেন।

২. ডকুমেন্টের ডিজিটাল কপি: ফটোকপি করার পাশাপাশি, এই ডকুমেন্টগুলো স্ক্যান করে ড্রপ-বক্স, গুগল ড্রাইভ ইত্যাদি জায়গায় সেভ করে রাখতে পারেন। দরকারে ডাউনলোড করে নিন।

৩. ডকুমেন্টের ছবি তুলে রাখা: স্ক্যান করার সুযোগ না থাকলে ডকুমেন্টগুলোর পরিষ্কার ছবি তুলে সেগুলো ফেসবুকের ইন-বক্সে বা আপনার মোবাইলে রেখে দিন।

৪. কাউকে মেইল করে রাখা: ছবি বা স্ক্যান করা ডকুমেন্টগুলো এটাচ করে বিশ্বস্ত কাউকে ই-মেইল করে দিন ও জানিয়ে রাখুন যে, দরকারে তাকে এই তথ্যগুলো অন্য কোনো ঠিকানায় আপনি পাঠাতে বলতে পারেন।

বিদেশে গিয়ে বিভিন্ন সমস্যা হতেই পারে, তবে মাথা ঠাণ্ডা রাখলে এই সমস্যাগুলো কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হতে পারে সহজেই।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর/এইচ কে

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৭:৩৫ পি.এম