President


অব্যাহত সহিংসতায় মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সঙ্গে দেশ-বিদেশের কোনো ষড়যন্ত্রের অনুপ্রবেশ ঘটতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার দুপুরে নোয়াখালীতে এক অনুষ্ঠানে কাদের বলেছেন, ‘রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিয়ে সরকার উদ্বিগ্ন। কারণ, যে জঙ্গিরা মিয়ানমারের সংকট, শরণার্থীদের সঙ্গে সেই জঙ্গির অনুপ্রবেশ ঘটতে পারে। তাই জঙ্গি, অবৈধ অস্ত্র ও ইয়াবার অনুপ্রবেশের সঙ্গে দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রেরও অনুপ্রবেশ ঘটতে পারে’।

ওবায়দুল কাদের বিএনপির প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, ‘রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিয়ে কক্সবাজার, টেকনাফ ও উখিয়া অঞ্চলে দেশি-বিদেশি কিছু কিছু ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। শুনতে পাই, এসব ষড়যন্ত্রের সঙ্গে আমাদের দেশের একটি দল এবং তাদের দোসররা অত্যন্ত সক্রিয়। এ অপতৎপরতা বন্ধ করুন, যদি এই দেশকে ভালোবাসেন’।

এসব আশঙ্কা সত্ত্বেও মানবিক বিবেচনায় অসহায়, নির্যাতিত নর-নারী ও শিশুদের আশ্রয় দেয়া হচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘সরকার এ নিয়ে ২৪ ঘণ্টা কাজ করছে। আওয়ামী লীগের একটি শক্তিশালী দল সেখানে পাঠানো হয়েছে’।

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার ৫০ শয্যার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি বলেন, ‘এই শরণার্থীদের সঙ্গে কোন ষড়যন্ত্র আবার এখানে আসে। তরুণ সমাজকে ধ্বংস করছে যে ইয়াবা, শরণার্থীদের সঙ্গে সেই ইয়াবার স্রোত এবং সেইসঙ্গে অবৈধ অস্ত্রও আসতে পারে’।

মন্ত্রী বলেন, ‘মানবিক আচরণ আমরা করব। সেইসঙ্গে জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, মুসলিম বিশ্বসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে আহ্বান জানাব, আমাদের ওপর যে বিশাল বোঝা জেঁকে বসেছে, তাতে আমাদের জনগণ, জীবন প্রভাবিত হচ্ছে। আপনারা মিয়ানমার সরকারকে বাধ্য করুন। এই রোহিঙ্গা শরণার্থীদের যেন তাদের দেশে ফিরিয়ে নেন’।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘রোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যা মোকাবিলার জন্য সারা দুনিয়া শেখ হাসিনা সরকারের প্রশংসা করছে, আর বিএনপি নিন্দা করছে। শেখ হাসিনার সাফল্য বিএনপির সহ্য হয় না। বিএনপি হাসিনামুক্ত বাংলাদেশ চায়। তাদের এই খায়েশ কোনোদিন পূর্ণ হবে না’।

বিএনপিকে উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে বাস্তব কথাগুলো না বলে বিএনপি আজ নোংরা খেলায় মেতে উঠেছে। তারা মিয়ানমারের বিরুদ্ধে বলে না, যারা অত্যাচারী তাদের বিরুদ্ধে কথা বলে না। বলে দেশের সরকারের বিরুদ্ধে। তারা চায় শুধু ক্ষমতা। রোহিঙ্গাদের প্রতিও তাদের কোনো দরদ নেই’।

কবিরহাট পৌরসভার মেয়র জহিরুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের সিবিএইচসির লাইন ডিরেক্টর মো. আবুল হাশেম খান, স্বাস্থ্য অধিদফতরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক এ এম মজিবুল হক, জেলা প্রশাসক মাহবুব আলম তালুকদার, পুলিশ সুপার (এসপি) মো. ইলিয়াছ শরীফ, জেলা সিভিল সার্জন সামছুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিন প্রমুখ।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর/এইচ কে

০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৮:৫৭ পি.এম