প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পাহাড়ি জনপদের পাশাপাশি হাওর অঞ্চলগুলোতে আবাসিক স্কুল নির্মাণ করে দেয়া হবে।

আজ সকালে নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলায় কলেজ মাঠে হাওরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ বিতরণের আগে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী এ ঘোষণা দেন।

শেখ হাসিনা বলেন, হাওর এবং পাহাড়ি অঞ্চলে ছেলেমেয়েদের যাতায়াতে সমস্যা হয়। এই সমস্যা লাঘবে আবাসিক স্কুল নির্মাণ করে দেবে সরকার। যাতে তাদের শিক্ষায় কোনো ব্যাঘাত না ঘটে। আমরা সেই দিকে লক্ষ্য রেখে পদক্ষেপ নিচ্ছি।

তার সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ছেলেমেয়েদের বাবা-মাকে এখন আর পয়সা খরচ করে বই কিনতে হয় না। বই কেনার দায়িত্ব আমরা নিয়েছি। প্রতি বছরের মতো এবছরও বই বিতরণ করেছি। স্কুলে স্কুলে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম করে দিয়েছি।

হাওরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, কতজন মানুষ গৃহহারা, ভূমিহীন- তাদের প্রত্যেককে বিনা পয়সায় ঘর করে দেওয়া হবে। সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় তারা ঘর পাবেন। এই জন্য ঘর তুলে দেবো কারণ আওয়ামী লীগ এখন ক্ষমতায়। এই আওয়ামী লীগই দেশ স্বাধীন করেছে, আমাদের একটাই লক্ষ্য একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না। দুমুঠো ভাত পাবে। আমরা সেই ব্যবস্থাই করছি।

শেখ হাসিনা বলেন, হাওরাঞ্চলে ভবিষ্যতে খাদ্যসহায়তা ভিজিএফ কার্ড বাড়ানো হবে। কৃষকদের কৃষি ঋণের সব সুদ মওকুফ করা হয়েছে। পাশাপাশি স্বল্প দামে সার ও উন্নতমানের বীজ দেওয়া এবং কৃষি সহায়তা বৃদ্ধি করা হবে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, পানি সম্পদ মন্ত্রী আমিনুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম, স্থানীয় সাংসদ রেবেকা মমিন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়, বিভাগীয় কমিশনার জিএম সালেহ উদ্দিন, রেঞ্জের ডিআইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন, জেলা প্রশাসক ড. মো. মুশফিকুর রহমান, পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মতিউর রহমান খান, সাধারণ সম্পাদক আশরাফ আলী খান খসরু ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায় প্রমুখ।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এ আর/এস আর/এইচ কে/ ১৮ মে ২০১৭