শফিকুল ইসলাম, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে মোবাইল ফোনে কথা বলার সূত্র ধরে ১৩ বছরের এক শিশুকে অপহরণের পর ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ওই শিশু উপজেলা সদর মহিলা দাখিল মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। বেলকা ইউনিয়নের রামডাকুয়া গ্রামের মমিন মিয়ার ওই কন্যার সাথে পাশ্ববর্তী পীরগাছা উপজেলার (নোয়াখালীপাড়া) গ্রামের নুরুল হকের পুত্র রাসেল মিয়া প্রায়ই মোবাইল ফোনে কথা বলতো। এতে উভয়ের মধ্যে একটা স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে গত মঙ্গলবার (১৮ এপ্রিল) বিকাল বেলা মাদ্রাসার সামনের রাস্তা থেকে ওই ছাত্রীকে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায় রাসেল। এরপর রাতভর বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে ছাত্রীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে পরদিন (১৯ এপ্রিল) সকাল ৯ টার দিকে রাস্তায় রেখে কেটে পরে রাসেল। অসুস্থ্য ওই ছাত্রীকে পথচারিরা তার বাড়িতে পৌঁছে দেয়।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর পিতা মমিন মিয়া বাদি হয়ে ওই দিন সন্ধ্যায় থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৭/৯ (১) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিয়ার রহমান জানান আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার দিকে ভিক্টিমের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য গাইবান্ধায় পাঠানো হয়েছে।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এস আর/নীরব/কামরুল/ ২০ এপ্রিল ২০১৭