ইউরোপের নিরাপত্তা সংস্থা ইউরোপোল বলছে, শুক্রবার সারা পৃথিবীতে হ্যাকাররা যে সাইবার আক্রমণ চালিয়েছে, তাতে ১৫০টি দেশের ২ লক্ষ কম্পিউটার আক্রান্ত হয়েছে। আরো আক্রমণের আশংকা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বাংলাদেশেরও বেশ কিছু ব্যক্তি ও বড় প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটার এই হামলার শিকার হয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্রে খবর পাওয়া গেছে। যদিও ‘গ্রাহকদের মধ্যে আতংক সৃষ্টির ভয়ে’ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এ কথা গোপন রাখার চেষ্টা করছে।

আক্রান্ত কম্পিউটারে ব্যবহারকারীরা কোন ফাইল খুলতে পারছেন না, এবং সেগুলো আটকে দিয়ে কম্পিউটারের পর্দায় একটি বার্তার মাধ্যমে ‘মুক্তিপণ’ হিসেবে টাকা দাবি করা হচ্ছে।

এ আক্রমণ থেকে কিভাবে রক্ষা পাওয়া সম্ভব?

বিবিসির ক্রিস ফক্স এ ব্যাপারে পরামর্শ দিচ্ছেন, সাধারণ কম্পিউটার ব্যবহারকারীরা তিনটি জিনিস করতে পারেন।

“একটি হচ্ছে, আপনার কম্পিউটার , ল্যাপটপ, আইপ্যাড, ট্যাবলেট বা মোবাইল ফোনে এর প্রস্তুতকারকরা যে সব সফটওয়্যার আপডেট করতে বলেন, তা ঝুলিয়ে রাখবেন না। সঙ্গে সঙ্গে করে ফেলুন।”

“অচেনা বা অপ্রত্যাশিত কোন ই-মেল খুলবেন না, কোন এ্যাটাচমেন্ট ডাউনলোড করবেন না। কোন অচেনা লিংকের ওপর ক্লিক করবেন না।”

“তিন নম্বর: আপনার কম্পিউটার যদি এখনো পুরানো অপারেটিং সিস্টেম যেমন ‘উইনডোজ এক্সপি’ দিয়ে চলে – যার এখন আর কোন টেকনিক্যাল সাপোর্ট পাওয়া যায় না – সেগুলো ব্যবহার করা অনেক বেশি ঝুঁকিপূর্ণ । এগুলো আপগ্রেড করুন, নতুন অপারের্টিং সিস্টেম ব্যবহার করুন – যেগুলোর নিরাপত্তার জন্য এর নির্মাতারা নিয়মিত আপডেট দিয়ে থাকেন।”

সোমবার পশ্চিমা বিশ্বের দেশগুলোতে সাপ্তাহিক ছুটি শেষের পর অফিস-আদালত খুললে আরো আক্রমণ হতে পারে – এমন আশংকা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ইউরোপোলের প্রধান রব ওয়েইনরাইট বলেছেন, যেসব প্রতিষ্ঠান তাদের সিস্টেমের সবশেষ নিরাপত্তা প্যাচ আপডেট করে নি, তাদের উচিৎ হবে সোমবার সকালের আগেই তা করে নেয়া।

সূত্র: বিবিসি

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এস আর/এ আর/এইচ কে/ ১৫ মে ২০১৭