টাইমস ওয়ার্ল্ড ডেস্ক: রাজধানীর মতিঝিলে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের (বিসিক) উদ্যোগে পাঁচ দিনব্যাপী ‘হেমন্ত মেলা ১৪২৩ ও ত্রৈমাসিক কারুশিল্প প্রদর্শনী’ চলছে। রোববার বিসিক ভবন চত্বরে এ মেলার উদ্বোধন করেন বিসিক চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম।

মেলায় ৬০টি স্টল রয়েছে। স্টলগুলোতে হস্ত ও কুটির শিল্পপণ্যের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের পোশাক, নকশীকাঁথা, তাঁতের ও জামদানি শাড়ি, পাটের হস্তশিল্প, আধুনিক পদ্ধতিতে উৎপাদিত মধু, খাদ্যজাত সামগ্রীসহ হস্ত ও কুটির শিল্পজাত পণ্য। মেলা উপলক্ষে কারুশিল্পীদের উৎপাদিত পণ্যসামগ্রী নিয়ে চলছে কারুশিল্প প্রদর্শনী।

দৃষ্টিনন্দন বাহারি ধরনের পোশাকসহ বিভিন্ন পণ্যের পসরা বসেছে এই হেমন্ত মেলায়। ব্লক, বাটিক প্রিন্টিংয়ের দেশি-বিদেশি থ্রি-পিস, শাড়ি, ওড়না, শাল, পাঞ্জাবি ও নকশী কাঁথার সমারোহ রয়েছে মেলায়। এছাড়াও স্ক্রিন প্রিন্টিং, বাঁশ-বেত, পাট ও চামড়ার তৈরিকৃত আকর্ষণীয় বিভিন্ন পণ্য আকৃষ্ট করছে ক্রেতাদের।

বেশিরভাগ ক্রেতার আনাগোনা কাপড়ের স্টলগুলোতে। চাহিদা অনুযায়ী তাদের সামনে বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী মেলে ধরছেন বিক্রেতারাও। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, বিগত বছরগুলোর তুলনায় এবছরও ব্যবসা ভাল হবে। অন্যদিকে প্রচারণা কম হয়েছে, এমন অভিযোগ করার পাশাপাশি প্রতিদিন মেলার সময় বাড়ানোর কথা বলেন তারা।

মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিসিকের নকশা ও বিপণন পরিচালক মোস্তফা কামাল। তিনি বলেন, বিসিক ডিজাইন সেন্টার হলো সেন্টার অব এক্সিলেন্স। কারণ এই ডিজাইন সেন্টারে কাজ করে গেছেন পটুয়া কামরুল হাসান, শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী ও শিল্পী এমদাদ হোসেনের মত বহু জ্ঞানী-গুণী শিল্পীরা।

তিনি আরও বলেন, এই ডিজাইন সেন্টার নতুন নতুন ডিজাইন উদ্ভাবনসহ ক্ষুদ্র, কুটির ও হস্তশিল্প খাতের উদ্যোক্তাদের উৎপাদিত পণ্যের বিপণন সহায়তা বৃদ্ধির লক্ষে কাজ করে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে বিসিকের প্রধান নকশাবিদ বশীর আহমেদ বলেন, ‘বিসিকের নকশা কেন্দ্রের মাধ্যমে ব্লক, বাটিক, প্রিন্টিং, পুতুল তৈরি, স্ক্রিন প্রিন্টিং, প্যাকেজিং, বাঁশ-বেতের কাজ, পাটজাত হস্তশিল্প, চামড়াজাত পণ্য, ধাতব শিল্প, বুনন শিল্প ও ফ্যাশন ডিজাইন ইত্যাদি ১৩টি ট্রেডে এ পর্যন্ত ২৭ হাজার ৫৪৮ জন উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে’।

বশীর আহমেদ জানান, নকশা ও নমুনা উদ্ভাবন ও বিতরণ করা হয়েছে যথাক্রমে ৩২ হাজার ৫২০ এবং ৬৬ হাজার ৩৯৩টি। এ পর্যন্ত মেলা ও প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে ১৭১টি। মেলা ও প্রদর্শনী সর্বসাধারণের জন্য প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে।  চলবে আগামী ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/ হায়াত/ আশা/এস এস/ ২রা জানুয়ারী, ২০১৭