মাত্র কয়েকদিন আগেই ক্লাব থেকে আর বিসিবি থেকে পাওয়া পারিশ্রমিক নিয়ে তুলনা করেছেন মুশফিকুর রহীম। তখন থেকেই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল, ক্রিকেটারদের বেতন-বোনাস বাড়ার বিষয়টি। সেই অনুযায়ী জাতীয় ক্রিকেট দলের মাসিক বেতন ও ম্যাচ ফি থেকে শুরু করে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আগামী ২২ এপ্রিল (শনিবার) বিসিবি সভাশেষে এ বিষয়ে বিস্তারিত ঘোষণা আসবে।

বেতন-ভাতা নিয়ে মঙ্গলবার গণমাধ্যমকে বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন জানান, ‘বাংলাদেশ দল যেভাবে পারফর্ম করছে তাতে তাদের প্রত্যাশা থাকাটা স্বাভাবিক। তাছাড়া আর্থিক বিষয়টি সবাইকে অনুপ্রাণিত করে সেটা যে যে অবস্থানেই থাকুক না কেন। প্রতি বছরই তাদের বেতন বাড়াতে চেষ্টা করি। আগামী বোর্ড সভায় প্লেয়ারদের চুক্তি নিয়ে আলোচনা হবে এবং সেখান থেকেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্তটি আসবে।’

তবে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিসিবির একটি সূত্র জানিয়েছে, বৈঠকে চুক্তিতে থাকা ক্রিকেটারের বেতন ও ম্যাচ ফি’সহ অন্যান্য সুবিধাদি বর্তমানের প্রায় দ্বিগুণ করা সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের প্লেয়ারদের সবশেষ বেতন বাড়ানো হয়েছিল ২০১৫ সালে। সে বছর তাদের মূল বেতনের চেয়ে ২৫ ভাগ বেশি বাড়ানো হয়েছিল। তবে গত বছর বাড়ানো হয়নি।

এদিকে, বেতন-ভাতা বাড়ানোর পাশাপাশি বিসিবির বর্তমান চুক্তিতে থাকা তিন ক্রিকেটারকে সরিয়ে নতুন তিন খেলোয়াড়কে অন্তর্ভুক্তি নিয়েও সিদ্ধান্ত আসতে পারে শনিবারের বৈঠকে। সেক্ষেত্রে যোগ হতে পারেন মেহেদি হাসান মিরাজ ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এস আর/নীরব/কামরুল/ ২০ এপ্রিল ২০১৭