টাইমস ওয়ার্ল্ড ডেস্ক: জাতীয় পার্টির (এ) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ বলেছেন, ‘আমার নামে দায়েরকৃত সকল মামলাই মিথ্যা। বিচারককে বাধ্য করা হয়েছিল আমার বিরুদ্ধে রায় দেয়ার জন্য।’

সোমবার দুইদিনের সফরে রংপুরে এসে জাতীয় পার্টির (এ) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ পল্লীনিবাস বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ মন্তব্য করেন।

বেগম খালেদা জিয়ার মামলা প্রসঙ্গে এরশাদ বলেন, ‘বিএনপি রাজনীতির ময়দান থেকে নিশ্চিহ্ন হতে চলেছে। তাদের অবস্থা করুন। তারা আর ঘুরে দাঁড়াতে পারবে না। আমাকে তারা মিথ্যা মামলায় জেলে পুড়িয়েছিলো। এখন খালেদা জিয়ার পালা। আইন-আদালতের মাধ্যমেই তিনি জেলে যাবেন। আমি অপেক্ষায় আছি তিনি কবে জেলে যাবেন তা দেখার জন্যই।’

আগামী নির্বাচনে তিন শ আসনে জাতীয় পার্টির (এ) প্রার্থী দেয়া হবে উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, ‘আমরা কারো সঙ্গে জোট করবো না এককভাবে নির্বাচন করবো। সেজন্য আমি দল গোছানোর কাজ করছি। সকল বিভাগে সংযোগ শুরু করেছি। মানুষের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘ক্ষমতা ছাড়ার পর আমাকে নির্বাচন করার সুযোগ দেয়ার কথা বলে কারাগারে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু চুক্তি ছিলো আমি নির্বাচন করবো। সেই সময় আমাকে নির্বাচন করার সুযোগ দেয়া হলে পুনরায় ক্ষমতায় যেতে পারতাম।’

নির্বাচন কমিশনকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির চলমান সংলাপ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বিএনপি কি করবে আমি তা জানি না। তবে রাষ্ট্রপতি এ ব্যাপারে যে পদক্ষেপ নেবেন তা আওয়ামী লীগ ও আমরা মেনে নেবো। বিএনপি কি বললো না বললো তাতে আমাদের কিছুই যায় আসে না।’

সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যা প্রসঙ্গে এরশাদ বলেন, ‘এটি কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না।’

সংসদ সদস্যদের নিরাপত্তা চাওয়া প্রসঙ্গে এরশাদ বলেন, ‘আমরা জনপ্রতিনিধি। আমরা জনগণের সঙ্গে থাকি। তাই পুলিশী নিরাপত্তার দরকার নেই। পুলিশী নিরাপত্তা দেয়া হলে আমরা কিসের জনপ্রতিনিধি।’এ সময় জাতীয় পার্টির (এ) নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/আশা/হায়াত/ ৯ ই জানুয়ারী, ২০১৭