বলিউডের অধিকাংশ ছবিতেই ছোট ছোট চরিত্রে বিদেশী অভিনেত্রীদের দেখা মিলে। বছর জুড়ে বলিউডের নানা ছবিতে অভিনয় করেন এসব বিদেশী অভিনেত্রী।

কাজের সূত্রে ট্যুরিস্ট ভিসায় আসা যাওয়া করেন বলে ভারতে এদের প্রায় কারও ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নেই। এজেন্টদের মাধ্যমে এরা নগদে পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন।

গত ৮ নভেম্বর ৫০০, ১০০০ টাকার নোট বাতিলের সিদ্ধান্তে নগদ অর্থের আকাল তৈরি হয় ভারতে। বিপাকে পড়েন এসব অভিনেত্রী। অ্যাকাউন্ট না থাকায় পুরনো নোট পরিবর্তন করতে পারছেন না তারা। জানা যায়, মুম্বাইয়ের অভিজাত এলাকায় একটি ভাড়াবাড়িতে থাকেন বেশ কয়েকজন বিদেশী অভিনেত্রী। সেখানকার বাড়ি মালিককে ভাড়ার টাকা দিতে পারছেন না তারা। উপায় না থাকায় তারা ভাড়াবাড়ির মালিককে প্রস্তাব দিচ্ছেন, নগদে ভাড়া না মিটিয়ে পরিবর্তে তার শয্যাসঙ্গী হওয়ার।

উজবেকিস্তান থেকে আসা এক শিল্পী জানান, তার কাছে যে পুরানো নোট আছে, তা বদলে দিতে রাজি হয়েছে এক দালাল। কিন্তু বিনিময়ে নতুন নোটের সিংহভাগ চাইছে সে। শেষ পর্যন্ত রফা করে পুরানো নোটের মাত্র ৩০ শতাংশ নতুন নোটে বদলাতে পেরেছেন তিনি।

মুম্বাইয়ের আন্ধেরির বাসিন্দা মঙ্গেশ ভিসে নামে এক এজেন্ট বলেন, নোট বাতিল হওয়ার পর থেকে তিনি অন্তত ১২টি কল পেয়েছেন বিদেশি মেয়েদের কাছ থেকে, যারা দেহ ব্যবসায় নামতে চান, খদ্দের খুঁজছেন।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/এস আই/নীরব/এস আর/১৯ ডিসেম্বর,২০১৬