নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁ সদর উপজেলার দুবলহাটি ইউনিয়নের ভবানীনগর গ্রামে বাড়ির ছাদ দেয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের ভয়ে গত তিন মাস থেকে বাড়ি ছাড়া এক অসহায় পরিবার। সুবিচারের আশায় জেলা পুলিশ সুপার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী শিক্ষক ইসমাইল হোসেন।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, বিগত ১৯৮৮ সাল থেকে ইটের আধাপাকা বাড়ি করে বসবাস করে আসছেন। গত ১ জানুয়ারি/২০১৭ বাড়ির ভেতরের আঙ্গিনায় ছাদ দেয়া শুরু করলে প্রতিপক্ষ আব্দুল জব্বার এর ছেলে ইমরান হোসেন ইন্টু ও বুলবুল হোসেন বুলু সহ কয়েকজন স্বদলবলে এসে বাধা দিয়ে জোর পূর্বক জমি দখলের চেষ্টা করে।

এ সময় স্ত্রী ফরিদা খাতুন কে মারপিট করে ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়। কোন ছেলে সন্তান না থাকায় তিন মেয়েকে নিয়ে অনত্র অসহায় জীবন যাপন করছেন।

এছাড়া গত তিন মাস থেকে সাটারিং সরঞ্জামাদির ভাড়া বহন করতে হচ্ছে। বাড়ীর পাশে লাগানো গাছ কেটে ফেলা হয়েছে এবং জোর পূর্বক দখলের চেষ্টা করছে। নিরুপায় হয় নওগাঁ সদর থানায় জি.আর ৯/১৭ মামলা দায়ের করেন। মামলা করার পর প্রতিপক্ষরা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে।

অভিযোগকারী শিক্ষক ইসমাইল হোসেন বলেন, প্রতিক্ষকরা প্রভাবশালী হওয়ায় মামলা তুলে নেয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দিচ্ছে। তাদের ভয়ে বাড়িতে যেতে পারছিনা। কোন ছেলে সন্তান না থাকায় অসহায় পেয়ে প্রতিপক্ষরা জমিজমার লোভে আমার দুই মেয়ের সাথে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু তাদের অক্ষর জ্ঞান না থাকায় প্রস্তাবে অসম্মত হলে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি শুরু করে জমি দখলের চেষ্টা করছে। সুবিচারের আশায় প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছেন তিনি।

প্রতিপক্ষ বুলবুল আহমেদ বলেন, সে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদের হয়রানি করছে। বরং ইসমাইল হোসেন আমাদের জমিতে বাড়ি করে বসবাস করে আসছেন। তাকে আর ছাদ দিতে দিব না। বাড়ির অর্ধেক পরিমান জমি আমরা পাব এবং তাকে তা ছেড়ে দিবে হবে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান বলেন, ওই পরিবার জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে থানায় মামলা আছে। তবে হুমকি ধামকির কারণে তারা যে বাড়িতে থাকতে পারছেননা তা আমাকে অবগত করা হয়নি।

নওগাঁ পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক বিপিএম,পিপিএম অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, উভয় পক্ষকে বসে বিরোধ মিমাংসার জন্য ডিবি ওসি জাকিরুল ইসলামকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/নীরব/এ আর/হায়াত/২০ এপ্রিল, ২০১৭