ভারতে জাতীয় সংগীত বেজে উঠলে, না উঠে দাঁঁড়ালে তার ঠাঁই হবে সোজা কারাগার। এক্ষেত্রে আপনার কাছে ‌যে ‌যুক্তিই থাকুক না কেন, তা আর গ্রাহ্য হবে না।

শ্যামনারায়ণ চৌস্কেই নামে ভারতের ভোপালের এক বাসিন্দা সম্প্রতি বিষয়টি নিয়ে শীর্ষ আদালতে অনুরোধ জানিয়েছেন। তাঁর ‌যুক্তি, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও জাতীয় সংগীত শুনে এখনও অনেকে দাঁড়াতে অনাগ্রহী, আদালত অবমাননার জন্য তাঁদের জন্য শাস্তির ব্যবস্থা করুক সর্বোচ্চ আদালত। তবে আদালত বিষয়টি শুনানির জন্য আমলে নিলেও এখনও রায় দেয়নি।

প্রসঙ্গত ইনিই সেই ব্যক্তি, ‌যাঁর আবেদনের প্রেক্ষিতে সিনেমাহলগুলিতে জাতীয় সংগীত বাজানোর সময়ে প্রতিটি দর্শককে বাধ্যতামূলকভাবে উঠে দাঁড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

‘ন্যাশানাল অনার অ্যাক্ট ১৯৭৯’ অনু‌যায়ী জাতীয় পতাকা ও ভারতীয় সংবিধানের কেউ অবমাননা করলে সর্বোচ্চ তিন বছর জেল হতে পারে। কিন্তু জাতীয় সংগীতকে অশ্রদ্ধার ক্ষেত্রে কোন শাস্তির বিধান নেই। শ্যামনারায়ণ তাঁর আবেদনে জাতীয় সংগীতকেও এই আইনের আওতাভুক্ত করতে বলেন।

এই আবেদনটি শুনানির জন্য গ্রহণ করেছেন বিচারপতি দীপক মিশ্র। আগামী ২৩ অগাস্ট এই শুনানির দিন ধা‌র্য হয়েছে।

সূত্র: ইন্ডিয়া ডট কমের।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/হায়াত/কামরুল/এ আর/২০ এপ্রিল, ২০১৭