সনজিত কর্মকার, চুয়াডাঙ্গা : চুয়াডাঙ্গা জমি বিরোধ নিয়ে সংঘর্ষে কমল হোসনে (৪০) নজরুল ইসলাম (৫৫) দু’জন নিহত হয়েছেন।

বুধবার সকালে চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার সাহেবনগর গ্রামে জমির আইল কাটা নিয়ে ছোট ভায়ের হাতে বড় ভাই কলম হোসেন ও একই উপজেলার নগরবোয়ালিয়া গ্রামে বাড়ির রাস্তা নিয়ে সংঘর্ষে প্রতিবেশির হাতে নজরুল ইসলাম নিহত হন।

নিহত কলম হোসেন জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার সাহেবনগর গ্রামের মৃত আজমত আলীর ছেলে এবং নজরুল ইসলাম নগরবোয়ালিয়া গ্রামের মৃত কিতাব আলীর ছেলে।

আলমডাঙ্গা থানার ওসি তদন্ত মেহেদী রাসেল জানান, আলমডাঙ্গা উপজেলার নগরবোয়ালিয়া গ্রামের প্রতিবেশি ফড়িং মন্ডলের ছেলে শরিফুল ইসলামের সাথে প্রতিবেশি নজরুল ইসলামের বাড়ির পাশের রাস্তা তৈরির নিয়ে সংঘর্ষ বাধে। শরিফুল ও তাদের বাড়ির লোকজন নজরুল ইসলামকে কিল ঘুষি মারে এবং গলা টিপে ধরে। এ ঘটনায় নজরুল গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে আলমডাঙ্গার হারদী হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত নজরুল ইসলামের ভাইয়ের ছেলে আলমগীর হোসাইন জানান, ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে গ্রামে রাস্তা তৈরির জন্য ইট পাঠান হয়। শফিকুল ইসলামরা রাস্তার জন্য তাদের জমি ছাড়বে না বলে জানালে গোলোযোগের সূত্রপাত হয়। একপর্যায়ে শফিকুল ও তাদের বাড়ির লোকজন গলা টিপে শ্বাসরোধ করে নজরুল ইসলামকে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

এদিকে, একই উপজেলার সাহেবনগর গ্রামে বিলে জমির আইল কাটা নিয়ে আজমত আলীর দুই ছেলে লালন হোসেন ও কলম হোসেনের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁেধ। এ সময় ছোটভাই লালন হোসেন কোদাল দিয়ে বড় ভাই কলম হোসেনকে মাথায় আঘাত করে। এতে কলম ঘটনাস্থলেই মারা যান।

আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ পৃথক দুটি স্থান থেকে মরহেদ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

ওসি তদন্ত আরো জানান, হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতরা পালিয়ে গেছে পালিয়ে গেছে।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/ আশা/ নীরব/এস আর / ১১ জানুয়ারি, ২০১৭