নারীর সৌন্দর্য, তা ধরে রাখা
এসব নিয়ে আলোচনা সর্বত্র। পুরুষের ক্ষেত্রে এ বিষয়টি বলা যায় অনেকটাই উপেক্ষিত। কিন্তু বয়স তো পুরুষেরও বাড়ে। তাদেরও দরকার হয় যত্ন। চল্লিশের পর সাধারণত পুরুষের দেহ মুটিয়ে যায়, চুল পড়ে মাথা হয় টাক। উচ্চ রক্তচাপ থেকে হৃদরোগ অনেক কিছুই শরীরে বাসা বাঁধে। তাহলে? এসব থেকে রেহাই পেতে পুরুষ কী করতে পারেন?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিজের একটু যত্ন, খাদ্যাভ্যাস, পর্যাপ্ত ঘুম, ব্যায়ামসহ কিছু কৌশল অবলম্বন করে পুরুষও ধরে রাখতে পারেন বয়স। থাকতে পারেন চিরসবুজ। ৪০ বছরের পরও নিজের মধ্যে ধরে রাখতে পারেন তারুণ্য।

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে বয়স ৪০ হলেও পুরুষরা কীভাবে বয়স লুকিয়ে তারুণ্যকে সামনে আনতে পারবে।

সূর্য থেকে সুরক্ষা
মৃদু সূর্যের আলো স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। এই আলো থেকে ভিটামিন ডি পাওয়া যায়; যা হাড়ের সুরক্ষায় সহায়ক। তবে অতিরিক্ত সূর্যের আলো বা কড়া রোদের আলো ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। তাই মুখে সানস্ক্রিন ক্রিম বা লোশন অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে। কড়া রোদ বলিরেখা তৈরি করতে পারে এবং ত্বকে দাগ তৈরি করে- যার ফলে দেখতে বয়স্ক মনে হয়।

ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার
সৌন্দর্য নিয়ে এখন অনেকেই সচেতন। তাই নিশ্চই আর বলার দরকার নেই যে ময়েশ্চারাইজার ত্বকের শুষ্ক, রুক্ষ্মভাব প্রতিরোধ করে। তাই শরীরের রুক্ষ্মভাব দূর করে তরুণ দেখাতে শরীরে নিয়মিত ময়েশ্চারাইজার মাখতে হবে।

পানি পান
সারাদিন অন্তত সাত থেকে আট গ্লাস পানি পান ত্বককে ভালো রাখে। খুব বেশি পরিশ্রম করলে দিনে অন্তত ১০ থেকে ১৩ গ্লাস পানি পান করুন। তবে গরমের সময় এই পরিমাণের থেকেও বেশি পান করতে হবে।

ঘুম
প্রতিদিন অন্তত আট ঘণ্টা ঘুম শরীরের ক্লান্তি দূর করে ত্বককে ভালো রাখে। কম ঘুম চোখের নিচে কালোভাব তৈরি করে। পাশাপাশি মানসিক চাপ বাড়ায়। তাই পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমাতে হবে।

ভোরে ঘুম থেকে উঠুন
সূর্য ওঠার আগে ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করুন। সকালের হিমেল হাওয়ায় কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করুন। সকালের বাতাস আপনাকে সতেজ ও ফুরফুরে করে তুলবে। এজন্য রাতের বেলায় একটু আগেভাগেই ঘুমিয়ে পড়ুন। আর অবশ্যই রাতের খাবার খেয়েই ঘুমাতে যাবেন না। রাত ৮টার মধ্যেই রাতের খাবার খেয়ে কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করে ঘুমাতে যান।

ধূমপান
ধূমপান ফুসফুসের সমস্যা এবং বিভিন্ন ধরনের ক্যানসার তৈরি করে। এ ছাড়া ত্বকের ক্ষতি করে এবং বলিরেখা বাড়ায়। এটা ত্বককে মলিন করে দেয়, দাঁতের রং নষ্ট করে। তাই চল্লিশের পরও তারুণ্য ধরে রাখতে ধূমপান বাদ দিতেই হবে।

ভালো খাবার
খাদ্যতালিকায় সুষম খাবার থাকতে হবে। অ্যান্টি অক্সিডেন্ট জাতীয় খাবার খেতে হবে। যেমন : গ্রিন টি, টমেটো, বিভিন্ন ধরনের বাদাম ইত্যাদি। খাদ্যতালিকায় সবজি ও দুধ অবশ্যই রাখতে হবে। এসব খাবার শুধু স্বাস্থ্যকেই ভালো রাখবে না, ত্বক ভালো রাখতেও কাজ করবে।

ব্যায়াম
নিয়মিত রুটিন করে ঘণ্টাখানেক ব্যায়াম করুন। প্রথমেই ভারী ব্যায়াম করতে যাবেন না। হাঁটাহাঁটি দিয়ে শুরু করুন। সক্ষমতা বাড়লে ক্রমে ব্যায়ামের পরিমান বাড়িয়ে নিন।

বয়স মিলিয়ে পোশাক পরুন
হালফ্যাশনে যা চলছে সেটাতে নজর না দিয়ে শরীরের সাথে মিলিয়ে মানানসই পোশাক পরুন। সাধারণত মিষ্টি রঙের পোশাকগুলোই এই সময়টায় বেশি মানায়।

এ ছাড়া চল্লিশের পর নিজেকে আকর্ষণীয় করতে দাড়িও রাখতে পারেন। দাড়ি ত্বকের ঝুলে পড়া ভাবকে লুকাবে। বিভিন্ন স্টাইলে এই দাড়ি কাটতে পারেন। এতে আপনাকে স্টাইলিশও দেখাবে।

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/হায়াত/কামরুল/এ আর/২০ এপ্রিল, ২০১৭