এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় এবং অর্থকরী খেলা ডব্লিউডব্লিউই। এর টিভি সত্ত্ব থেকে যা আয়, তা শুনলে চমকে যেতে হয়। নৃশংস মারপিটের এই খেলায় প্রায়ই কিছু নোংরামি দেখা যায়। এ আর নতুন কিছু ন্য। তবে এবার যে নোংরামি দেখা গেল, তা সবাইকে লজ্জায় ফেলে দেবে।

ডব্লিউডব্লিউই আসরের সুন্দরী কুস্তিগীর নামেই পরিচিতি এভা মারিই। মূলত মাথায় লাল চুলের জন্য তাকে ‘রেড হেড’ বলে ডাকা হয়। ডব্লিউডব্লিউই আসরে লড়াই করলেও অন্য নারী কুস্তিগীরদের মতো মাসলওয়ালা চেহারা নয় এভার। এভার সৌন্দর্যের সঙ্গে সুঠাম শরীরের গঠন বার বারই আকর্ষণ করে ডব্লিউডব্লিউই প্রেমীদের।

কিন্তু যেভাবে ডব্লিউডব্লিউই এর আসরে তাকে লজ্জায় পড়তে হল তাতে চোখ ছানাবড়া সকলের। এর আগে পোশাক খুলে নেওয়ার একাধিক ঘটনা ঘটেছে ডব্লিউডব্লিউইতে। কিন্তু এসব ঘটনাই হয়েছে লড়াই এর শেষমুহূর্তে চূড়ান্ত মারপিটের সময়ে। তা বলে কাউকে অর্ধনগ্ন করে দেওয়া হয়নি। একে অন্যের পোশাক টানাটানি করেছেন নারী কুস্তিগীররা।

এভার সঙ্গে যা হল, তা খেলা নয়। বরং এটাকে নোংরামি বলা যেতে পারে। সাদা আপার কোটে এবং লাল অন্তর্বাসে তখন রিং এর ভেতর মনমোহিনী হয়ে ওঠেছেন এভা। চারিদিকে শুধুই তার নামের গর্জন। সাদা কোট খুলে রিং-এ অবতীর্ণ হলেন এভা। তৈরি তার প্রতিপক্ষ। হিংস্র বাঘের মতো সে এভাকে যেন প্রত্যক্ষ করছিল। রূপের ডালি সেজে কুস্তি করতে নামা এভার বোধ হয় এ সব খেয়াল ছিল না। কিছু বুঝে ওঠার আগেই তার শরীরের উপর ঝাপিয়ে পড়ে প্রতিপক্ষ নারী কুস্তিগীর। সে ছিড়ে ফেলে দেয় এভার শরীরের ঊর্ধ্বাংশের পোশাক। তখন অর্ধনগ্ন হয়ে পড়ার পরিস্থিতি এভার। লড়াই ছেড়ে কোনওমতে বুকের খুলে পড়া পোশাক হাত দিয়ে চেপে ধরে তখন লজ্জা নিবারণের চেষ্টা করেন এভা। রেফারি তাড়াতাড়ি একটি সাদা তোয়ালে এনে এভার শরীর ঊর্ধ্বাংশ ঢেকে দেন। এই অবস্থায় কোনওমতে রিং থেকে বেরিয়ে আসেন এভা।

এই ঘটনায় রীতিমতো হইচই পড়ে যায়। দর্শকরা উত্তেজিত হয়ে পড়েন। পরে ডব্লিউডব্লিউই সূত্রে অবশ্য জানানো হয়, এটা নিছক খেলা। মজা করতে এভা এবং তার প্রতিপক্ষ এটা অভিনয় করেছিলেন। অর্থাৎ এভার বুকের পোশাক যে খুলে নেওয়া হবে, তা নাকি আগে থেকেই ঠিক করে রেখেছিল কর্তৃপক্ষ।


টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/ হায়াত/ আশা/এস আর/ ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৬