আগামীকাল শুক্রবার থেকে গুলশান ডিএনসিসি পাকা ও কাঁচা মার্কেট খুলে দেয়া হবে। যদিও অগ্নিকাণ্ডে কাঁচা মার্কেট ধ্বংসস্তুপ পরিণত হয়েছে। কাঁচা মার্কেটের সামনের খোলা জায়গায় দোকান মালিকরা তাদের পসরা নিয়ে বসবেন। আর পাকা মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডে অর্ধেক দোকান পুড়ে গেলেও তা পরিষ্কার করে আবার চালু করা সম্ভব বলে জানিয়েছেন মার্কেটের দোকান মালিক সমিতির সভাপতি এস এম তালাল রেজভী। ব্যবসায়ীরা যেন এই দুই মার্কেট ছেড়ে চলে না যান সেজন্য বুধবার দুপুরে মাইকিং করে ব্যবসায়ীদের দোকানেই থাকতে বলা হয়েছে। মার্কেটটি শুক্রবার চালু হবে বলে মাইকিং করে বলা হয়।

অপরদিকে, ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়িরা আজও অভিযোগ করছেন, মার্কেটে পরিকল্পিতভাবে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছে। সোমবার রাতে যখন কাঁচা মার্কেটে আগুন ধরার পর ফায়ার সার্ভিস ইচ্ছা করেই তা নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি। ফলে আগুন পাকা মার্কেটে ছড়িয়ে পড়ে আগুন। আর কাঁচা মার্কেটে গান পাউডার দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছে। মেট্রো গ্রুপ এই দুই মার্কেটের স্থানে ১৮ তলা ভবন নির্মানের চুক্তি করেছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে। মার্কেটটি খালি করার জন্যই নির্মানকারী প্রতিষ্ঠান আগুন ধরিয়ে দিয়েছে বলে তারা সন্দেহ করছে।

ব্যবসায়ীদের এসব অভিযোগের বিষয়ে উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক বলেন, বৈদ্যুতিক ত্রুটি থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে। এটি কোনো নাশকতা নয়, এটি একটি দুর্ঘটনা। এখানে এতো বেশি ফ্লেমেবল প্রোডাক্ট ছিল যে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে।’

এ বিষয়ে মেয়র আগামীকাল মার্কেটের সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে তথ্য জানাবেন।

নাশকতার অভিযোগ উড়িয়ে দিচ্ছে না অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্তে গঠিত ফায়ার সার্ভিসের তদন্ত কমিটি। বুধবার তদন্ত কমিটির প্রধান ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক  লে. কর্নেল মোশাররফ হোসেন বলেন, সবদিক মাথায় রেখেই তদন্ত করা হচ্ছে। এটা নিছক অগ্নিকাণ্ড, নাকি নাশকতা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আমরা দোকান মালিকদের অভিযোগ উড়িয়ে দিচ্ছি না। পুড়ে যাওয়া দোকানগুলো থেকে আলামত সংগ্রহ করছি। সেগুলো পরীক্ষা করে দেখা হবে, কি কারণে অগ্নিকাণ্ড হলো।

আজ মেট্রো গ্রুপের জেনারেল ম্যানেজার মোর্শেদ আলম বলেন, ব্যবসায়িদের নাশকতার অভিযোগটি ঠিক নয়। কারণ ঐ মার্কেটের দোকান মালিক বা ব্যবসায়িরা তাদের বিরোধী গ্রুপ নয়। আর একটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান অপর একজন ব্যবসায়ির ক্ষতির দিকটি অবশ্যই সহমর্মিতা জানাচ্ছে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মেজবা উল ইসলাম বলেন, গুলশানের ডিএনসিসি মার্কেটের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসনের জন্য শিগগির ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। এ ব্যাপারে প্রাথমিকভাবে একটি নীতিমালা গ্রহনের সিদ্বান্ত নেয়া হয়েছে। আপাতত সিদ্ধান্ত না থাকলেও ভবিষ্যতে ক্ষতিগ্রস্ত জায়গায় বহুতল ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হতে পারে।

এদিকে, মঙ্গলবার রাতে আগুন সম্পূর্ণরুপে নিভিয়ে ফেলে ফায়ার সার্ভিস। আজ কাঁচা মার্কেটের ধ্বংসস্তুপের বিভিন্নস্থান থেকে ধোঁয়া বের হচ্ছিল। ফায়ার সার্ভিস ওইসব স্থানে পানি ছিটিয়ে দেয়। ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের কর্মকর্তা পলাশ চন্দ্র মোদক বলেন, ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি পানির পাম্প রাখা হয়েছে। দুইটি পানিবাহী বিশেষ গাড়ি দিয়ে ধোঁয়া বের হওয়া স্থানগুলোতে পানি দেয়া হয়েছে। কাঁচা মার্কেটের ধ্বংসস্তুপ সরিয়ে ফেলতে সেখানে ফায়ার সার্ভিসের ৮০ জন কর্মী কাজ করছেন। ইত্তেফাক

টাইমস ওয়ার্ল্ড ২৪ ডটকম/আশা/নীরব/এস আর/ ৫ জানুয়ারী, ২০১৭